শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০১:৪২ রাত
আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৮:৫৪ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সিলেটে কমেছে ওষুধের সরবরাহ, বেড়েছে দাম

সুবর্ণা হামিদ: নিত্যপণ্যের দামের সাথে পাল্লা দিয়েই বেড়ে চলেছে সব ধরনের ওষুধের দাম। করোনা ও করোনা পরবর্তী সময়ে বেড়েছে রোগবালাই। হঠাৎ করে সব ধরনের ওষুধের দাম বাড়ায় নাভিশ্বাস সাধারণ মানুষের।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের প্রধান, অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল ঔষধের দাম বাড়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, একটি বড় কারণ প্রথমে কোভিড প্যান্ডেমিক এবং তারপর চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতি। বিশ্ব বাজারে যে অর্থনৈতিক বিপর্যয় এবং ডলারের মূল্য বৃদ্ধি; তার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওষুধের কাঁচামাল আমানি করা হয়। পাশাপাশি দীর্ঘ দিন ধরে যে ওষুধের মূল্য বাড়ানো হয়নি, ফলে এবার ওষুধ প্রশাসনের অনুমোদন নিয়েই কিছু কিছু ওষুধের দাম বাড়ানো হয়েছে। 

তবে লক্ষণীয় যে, এ বাড়ানোটা সাধারণ মানুষের জন্য বাড়তি চাপ পড়লেও এটি কিন্তু অন্যান্য ভোগ্যপণ্যের মতো অনিয়ন্ত্রিতভাবে বাড়ানো হয়নি। ওষুধের দাম অস্বাভাবিকভাবে যাতে বেড়ে না যায় সেক্ষেত্রে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর তদারকি করছে।

ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালসের সিলেট অঞ্চলের এসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম বলেন, মূল্যবৃদ্ধির পেছনে প্রধান কারণ বিশ্ব অর্থনৈতিক বিপর্যয় এবং ডলারের মূল্য বৃদ্ধি। এখন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি করতে হয় বেশি দামে। এর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওষুধের মূল্য বৃদ্ধি হয়েছে। সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. এস এম শাহরিয়ার বলেন, দাম বাড়ার আরেকটা কারণ হলো, ওষুধের সাপ্লাই কমে গেছে। বিশেষ করে যাদের ব্লাড প্রেশার, ডায়াবেটিস, কোলেস্টেরল এবং এলার্জির মতো যে সকল রোগের জন্য নিয়মিত ওষুধ খেতে হয় তারাই বেশি সমস্যায় পড়ছেন। তবে আমার চেষ্টা করি সরকারি ওষুধগুলো যতটুকু সম্ভব রোগীকে দিতে। তবে আমার মনে হয় অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশে ওষুধের দাম এখনো অনেক কম। সম্পানা: সালেহ্ বিপ্লব

  • সর্বশেষ