প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কক্সবাজার সৈকতে রাতে দখল, দিনে উচ্ছেদ

আয়াছ রনি: [২] কক্সবাজার সৈকতের সুগন্ধা সড়কের উত্তর পাশে আবারো অবৈধ স্থাপনা করছে দখলদাররা। রাতারাতি পলিথিন ও বাঁশ দিয়ে নির্মাণ করে দোকানপাট। আদালতের নামে টাঙানো হয় সাইনবোর্ড। দোকান বরাদ্দের নামে ইতোমধ্যে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে চিহ্নিত চক্রটি। খবর পেয়ে দখলবাজির বিষয়টি নজরে আসে জেলা প্রশাসনের। অভিযানে নামে শক্তিশালী টিম।

[৩] সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে চালানো হয় উচ্ছেদ অভিযান। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজের নেতৃত্বে অভিযানকালে দখলদাররা পালিয়ে যায়। তবে, আটক হয়নি কেউ।

[৪] স্থানীয়রা জানিয়েছে, হাজী জসীম উদ্দিন ছিদ্দিকী নামক ব্যক্তি দখলবাজিতে নেতৃত্ব দেন। তার সিন্ডিকেটে রয়েছে আরো ৪০ জন মতো। অর্ধশতাধিক শ্রমিক দিয়ে রাতারাতি তারা পলিথিন ও বাঁশ দিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করেছে। দোকান দেওয়ার কথ বলে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে দখলদার চক্রটি।

[৫] নাম প্রকাশ না করে ভুক্তভোগী একজন ব্যবসায়ী জানান, তার কাছ থেকে ঐ সিন্ডিকেট দোকান দেওয়ার কথা বলে ৪ লাখ টাকা নিয়েছে। প্রশাসন উচ্ছেদ করায় ঐ সিন্ডিকেট তাকে বলেছে দুই দিন পর ম্যানেজ করে আবার দোকান নির্মাণ করবে।

[৬] উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের নির্দেশে ২০২০ সালের ১৭ অক্টোবর কক্সবাজার সুগন্ধা পয়েন্টে ৫২টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসনের যৌথ অভিযানকালে দখলদারদের সাথে সংঘর্ষে পুলিশ, সাংবাদিকসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। এ ঘটনায় দখলদারদের বিরুদ্ধে মামলা করে কউক। বছরের মাথায় আবারো সেই একই স্থানে দোকানপাট নির্মাণ শুরু করে চিহ্নিত চক্রটি। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত