প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মামুনুলকে বেড়ানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন হাসান জামিল ও রেজাউল করিম আবরার

ডেস্ক রিপোর্ট : হেফাজতের নেতা মাওলানা মামুনুল হককে ঘুরতে বেড়াতে যেতে পরামর্শ দিয়েছিলেন সংগঠনটির আরেক নেতা ইসলামী বক্তা হাসান জামিল ও তরুণ লেখক ও বক্তা রেজাউল করিম আবরার। শনিবার (৩ এপ্রিল) রাত পৌনে নয়টার দিকে তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে হাসান জামিল এ কথা জানান। রেজউল করিম আবরারও ফেসবুক স্ট্যাটাসে একই রকম অভিব্যক্তি জানান। হাসান জামিল জানান, আজ তিনি সুনামগঞ্জে রয়েছেন বলে নারায়ণগঞ্জে আসতে পারেননি।

হেফাজতের নেতা হাসান জামিল লিখেন, ‘কদিন থেকেই বলছিলেন, একদম হাঁপিয়ে গেছি।’ পরামর্শ দিয়েছিলাম কোথাও থেকে বেড়িয়ে আসেন। কিছু সময় নিরিবিলি কাটান। তিনি তাই করেছেন। সোনারগাঁয়ের এই হোটেলটা পছন্দের, হোটেলের সব স্টাফ উনাকে ভালোবাসেন! নিরিবিলি আর নিরাপদ ভেবেই অবকাশ যাপনে গিয়েছেন ২য় ভাবিকে নিয়ে। দুর্ভাগ্য, শিয়াল পালের হাতে পড়েছেন! যে বিষয়টা স্ত্রী, আপনজন, বন্ধুমহল সবাই জানেন তা নিয়ে ওদের কী তুঘলকি কাণ্ড! (আছি সুনামগঞ্জ, না হয় সাক্ষী হিসেবে নিজেই হাজির হতাম) ইচ্ছে করেই যেন ওরা পরিস্থিতিকে চরম ঘোলাটে করছে! মাবুদ হেফাজত করো- ভাইকে, জাতিকে, দেশকে!

ক’দিন থেকেই বলছিলেন, ‘একদম হাঁপিয়ে গেছি।’ পরামর্শ দিয়েছিলাম কোথাও থেকে বেড়িয়ে আসেন। কিছু সময় নিরিবিলি কাটান। তিনি তাই…

Posted by Muhammad Hasan Jamil on Saturday, April 3, 2021

 

রেজাউল করিম আববার জানান, ক’দিন থেকেই বলছিলেন, ‘একদম হাঁপিয়ে গেছি।’ পরামর্শ দিয়েছিলাম কোথাও থেকে বেড়িয়ে আসেন। কিছু সময় নিরিবিলি কাটান। তিনি তাই করেছেন। সোনারগাঁয়ের এই হোটেলটা পছন্দের, হোটেলের সব স্টাফ ওনাকে প্রচন্ড ভালোবাসেন! নিরিবিলি আর নিরাপদ ভেবেই অবকাশ যাপনে গিয়েছেন ২ য় ভাবীকে নিয়ে।
দুর্ভাগ্য, শিয়াল পালের হাতে পড়েছেন!
যে বিষয়টা স্ত্রী, আপনজন, বন্ধুমহল সবাই জানেন তা নিয়ে ওদের কি তুঘলকি কাণ্ড!
(আছি সুনামগঞ্জ, না হয় সাক্ষী হিসেবে নিজেই দাঁড়িয়ে যেতাম)
ইচ্ছে করেই যেন ওরা পরিস্থিতিকে চরম ঘোলাটে করছে!
মা’বূদ হেফাজত করো- ভাইকে, জাতিকে, দেশকে!
শায়খ হাসান জামিল হাফি.

ক’দিন থেকেই বলছিলেন, ‘একদম হাঁপিয়ে গেছি।’ পরামর্শ দিয়েছিলাম কোথাও থেকে বেড়িয়ে আসেন। কিছু সময় নিরিবিলি কাটান। তিনি তাই…

Posted by Rezaul Karim Abrar on Saturday, April 3, 2021

 

প্রসঙ্গত, শনিবার (৩ মার্চ) সকালে মামুনুল হক এক নারীকে নিয়ে সোনারগাঁওয়ের রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষে ওঠেন। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর উত্তেজিত জনতা রিসোর্টে ঢুকে ওই নারী সঙ্গীসহ তাকে অবরুদ্ধ করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে মামুনুল হককে উদ্ধার করে।

পরে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এর ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে হেফাজতের নেতাকর্মীরা রয়েল রিসোর্টে গিয়ে ভাঙচুর চালায়। পরে হেফাজতের নেতাকর্মীরা তাকে ওই রিসোর্ট থেকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

সোনারগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) তবিদ রহমান জানান, হেফাজতের নেতাকর্মীরা এসে হট্টগোল শুরু করলে মামুনুল হককে তারা ছেড়ে দেন। পরে হেফাজতের নেতাকর্মীরা মামুনুল হক ও তার নারী সঙ্গীকে নিয়ে চলে যায়।

আটকের পর মামুনুল হক দাবি করেন, সঙ্গে থাকা ওই নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। তার নাম আমেনা তৈয়াবা। ইসলামি শরীয়ত মোতাবেক ওই নারীকে তিনি বিয়ে করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত