প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় দলবল নিয়ে বিজয়নগরের ইউএনও’র পিকনিক

এএইচ রাফি: [২] করোনার মহামারীর মাঝে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পিকনিককে গিয়েছেন। এনিয়ে চলছে উপজেলা জুড়ে সমালোচনার ঝড়।

[৩] ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কে এম ইয়াসির আরাফাত প্রশাসনে কর্মরত ও তাদের পরিবারের সদস্যদেরকে নিয়ে শুক্রবার সকালে যানন পিকনিকে। স্থান নাসিরনগরের হরিপুর জমিদার বাড়ি। ৩০ জনের একটি দল নিয়ে নৌকায় করে তিনি সেখানে যান। জমিদার বাড়িসহ আশেপাশের এলাকা ঘুরে দেখেন তারা। তবে ছবি তোলা ও ফেসবুক পোস্টসহ অন্যান্য বিষয়ে তাঁরা বেশ সতর্ক ছিলেন। কিন্তু অন্য একটি পিকনিক টিম লাইভে বিজয়নগরের ইউএনওসহ প্রশাসনের লোকজন এসেছেন জানায়। ওই টিম ইউওনও’র ছবি দেখানো হলে বিষয়টি জানাজানি হতে শুরু করে।

[৪] এই বিষয়ে বিজয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, করোনাকালীন অস্থির পরিস্থিতি বিরাজ করছে সারা বিশ্বে। এ সময়ে পিকনিক করা অনুচিত। আমি এটাকে সমর্থন করি না। আর পিকনিকে গিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানাটাও সম্ভব না। প্রশাসনের পিকনিক সম্পর্কে তিনি অবগত নন বলেও জানান।

[৫] করোনাকালীন সময়ে এ ধরণের ট্যুর করা অন্তত দায়িত্বশীলদের বেলায় ঠিক হলো কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিকদের মুঠোফোনে বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কে এম ইয়াসির আরাফাত বলেন, এটা এমন কিছু না। একটা কাজ থাকায় এসেছি। আমার চলে আসছি। এটা নিয়ে কিছু করতে যাবেন না।

[৬] পরে বিকেল ৪টা ১৬মিনিটে ইউএনও’র বক্তব্য জানতে মুঠোফোনে কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

[৭] উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাবের প্রথম দিকে নিজের মেয়ের বিয়ের আয়োজন করে ওএসডি হন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন মো. শাহ আলম। সম্পাদনা: জেরিন আহেমেদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত