প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যত্ন নিন ত্বক ও চুলের

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনার কারণে অনেক দিন ধরেই আমরা ঘরবন্দি হয়ে আছি। সাধারণ ছুটি শেষ হলেও নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবে মানুষ তাড়াতাড়ি সম্ভব ঘরে ফিরছে। কিন্তু ঘরে থাকলে বেড়ে যায় অন্য রকম ব্যস্ততা। সবাই মিলে ঘরে থাকলে গৃহস্থালি কাজও বেড়ে যায়। আর এসব করে নিজেকে সময় দেওয়া হয়ে ওঠে না একেবারেই। তাই বলে নিজের যতœ নিতে একদমই ভুলে যাবেন না। অনেক সময় রূপচর্চার জন্য আলাদা করে সময় বের করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এ ক্ষেত্রে কাজের ফাঁকে ফাঁকেই নিজের যত্ন নিতে পারেন। এ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন ‘বিউটি স্যালন রেড’-এর সিইও এবং রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন। লিখেছেন-লাবণ্য লিপি

আফরোজা বলেন, এখনো যেহেতু বিউটি স্য্যালনগুলো সেভাবে খোলেনি, সেহেতু নিজের পরিচর্যা আপনাকে নিজেই করতে হবে। তা ছাড়া এতটা সময় আমরা কেউ কখনো পাইনি। আর যেহেতু সময় পাওয়া গেছে, সেহেতু সময়টা খানিকটা নিজের জন্যও ব্যয় করুন। কারণ আপনি সুস্থ ও সুন্দর থাকলেই অন্যের যত্ন নিতে পারবেন। খেয়াল রাখতে পারবেন। ঘরে থাকা সময়টাকে আমরা চাইলেই নিজের পরিচর্যাতেও কাজে লাগাতে পারি।

যাদের ত্বকে রোদে পোড়া দাগ আছে, তারা এ সময়টা ভীষণভাবে কাজে লাগাতে পারেন। আলাদা করে সময় বের করতে পারছেন না কিংবা হাতের কাছে রূপচর্চার সব জিনিস নেই। তাতে কী-হাতের কাছে যা আছে, তা দিয়েই আপনি অনায়াসে করতে পারেন নিজের পরিচর্যা। আপনি রান্নাঘরে কাজ করছেন? সেখানেই রয়েছে রূপচর্চার অনেক উপকরণ। রান্নার জন্য সবজি কাটছেন? সেখান থেকেই নিতে পারেন উপকরণ। পাকা টমেটোর ক্বাথ ত্বকের রোদে পোড়া দাগ দূর করতে ভীষণ উপকারী। তেমনি আলুর রসও রোদে পোড়া দাগসহ ত্বকের ছোপ দাগও দূর করে। কাজ করতে করতেই মুখে একটু লাগিয়ে নিন টমেটোর রস। পাকা টমেটোর রস প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে। এটা নিয়মিত ত্বকে লাগালে ত্বকের সব রকমের দাগ চলে গিয়ে ত্বক করবে উজ্জ্বল।

রূপচর্চার আরও একটি উপকরণ আলু। আলুর রস ত্বকের দাগ তুলতে সাহায্য করে। আলু গ্রেট করে এর সঙ্গে মসুর ডাল বাটা ও কাঁচা হলুদ বাটা মিশিয়ে গোসলের আগে মুখে ও গলায় লাগিয়ে ২০-২৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। রোজার দিনে ঘরে শসা থাকেই। শসাও ত্বকের দাগ সারাতে সাহায্য করে।

এ ছাড়া পাকা পেঁপে বা পাকা কলা থাকলে চটকে সারামুখে ও গলায় লাগিয়ে টেবিল গোছানোর কাজটা আপনি করতেই পারেন। ২০ মিনিট পর মুখে পানির ছিটা দিয়ে হালকা হাতে কিছুক্ষণ মাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। এটি কয়েকদিন নিয়মিত করলে ত্বক হবে নরম, কোমল ও উজ্জ্বল। হাত-পায়েও রোদে পোড়া দাগ পড়ে। অনেক সময় জুতার দাগও হয়। তাই কাজের ফাঁকে একটু লেবু হাত-পায়ে ঘষে নিন। আধা ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। টবে তো অ্যালোভেরা গাছ আছেই। ঘর গোছানোর সময় পুরো মুখে অ্যালোভেরার রস মেখে নিন। শুকিয়ে টান লাগলে ধুয়ে ফেলুন। অ্যালোভেরা ত্বক কোমল ও উজ্জ্বল করে।

শুধু ত্বক কেন, একই সঙ্গে যতœ নিন চুলেরও। গরমে চুলের গোড়ায় ঘাম ও ময়লা জমে স্ক্যাল্পে ফাঙ্গাল ইনফেকশন হয়। নিয়মিত চুল পরিষ্কার করুন। চুল ধোয়ার সময় নিজের চিরুনিটাও মনে করে ধুয়ে নিন। এবার চলুন জেনে নিই খুব সহজে নিজেই করবেন চুলের পরিচচর্যা-

অনেকেই চুল হেনা করেন বা মেহেদি লাগান। তবে এও সত্যি, মেহেদি লাগালে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তাই মেহেদি বা হেনা পাউডারের সঙ্গে একটা ডিম ফেটে মিশিয়ে এতে কয়েক ফোটা লেবুর রস মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে চুলগুলো গুছিয়ে বেঁধে নিয়ে সংসারের কাজ সেরে নিন। তার পর শ্যাম্পু করে গোসল করে নিন।

অ্যালোভেরা শুধু ত্বক নয়, চুলের জন্যও অত্যন্ত উপকারী। সপ্তাহে দুই দিন চুলে অ্যালোভেরার ক্বাথ লাগিয়ে ঘণ্টাখানেক পর চুল ধুয়ে নিন। এতে চুল নরম কোমল ও ঝলমলে হবে। চুল পড়া বন্ধও হবে।

চুল পড়া বন্ধ করতে ও নতুন চুল গজাতে পেঁয়াজের রস অত্যন্ত উপকারী। কয়েকটা পেঁয়াজ থেঁতো করে চুলের গোড়ায় বিলি কেটে লাগিয়ে ঘণ্টাখানেক রেখে ধুয়ে ফেলুন।

খুশকি দূর করতে লেবু বেশ উপকারী। লেবুর রসে সামান্য পানি মিশিয়ে তুলার সাহায্যে চুলের গোড়ায় খুব ভালো করে লাগিয়ে নিন। তার পর হাতের কাজ শেষ করে গোসল করে নিন।

অনেক সময় ঘরে কন্ডিশনার শেষ হয়ে যায়। তবে ঘরে যা আছে, তা দিয়েও আপনি নিজের চুল কন্ডিশন করে নিতে পারেন। চায়ের লিকার ছেঁকে পানির সঙ্গে মিশিয়ে শ্যাম্পুর পর চুলটা ওই পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। চুল হবে ঝরঝরে ও উজ্জ্বল।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত