শিরোনাম
◈ ১০ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী ◈ জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা থেকে দুর্নীতি নির্মূল করাই আমাদের লক্ষ্য: হাইকোর্ট ◈ বৈশ্বিক কারণে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়ায় কষ্টে আছে মানুষ: কাদের ◈ ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন পরীমণি ◈ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগকারিদের জন্য বিশেষ সুযোগ  ◈ রংপুর সিটি নির্বাচনে মোস্তাফাকে লাঙ্গলের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা রওশনের ◈ পুলিশে ছেয়ে গেছে চীনের রাজপথ ◈ টাঙ্গাইলে বাসচাপায় দুই ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত ◈ লক্ষ্মীপুরে বিএনপির ৫ নেতাকে অব্যাহতি 

প্রকাশিত : ২১ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:৩০ সকাল
আপডেট : ২১ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:৩০ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

তাড়াহুড়া করা মন্দ স্বভাব, যা মানুষের জন্য ক্ষতিকর

মাওলানা হেদায়াতুল্লাহ: মহান আল্লাহ বলেন, ‘মানুষকে ত্বরাপ্রবণ করেই সৃষ্টি করা হয়েছে, শিগগির আমি তোমাদের আমার নিদর্শনগুলো দেখাব, সুতরাং তোমরা আমাকে ত্বরা করতে বলবে না। ’ (সুরা আম্বিয়া, আয়াত : ৩৭)। কালের কন্ঠ

তাফসির : আলোচ্য আয়াতে মানুষের ত্বরাপ্রবণতা সম্পর্কে বলা হয়। মানুষ স্বভাবগতভাবেই তাড়াহুড়াপ্রবণ। প্রাত্যহিক জীবনে এ ধরনের অভ্যাস মানুষের জন্য ক্ষতিকর।

অনেক সময় তা লজ্জার কারণ হয়। তাই কাফির-মুশরিকরা নবী-রাসুলদের দ্রুত আজাব বা শাস্তি চাইত। মহান আল্লাহ মানুষকে এ ধরনের অভ্যাস থেকে বিরত থাকতে বলেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘আল্লাহ যদি মানুষের অকল্যাণ দ্রুত করতেন যেভাবে তারা তাদের কল্যাণ দ্রুত  করতে চায় তাহলে অবশ্যই তাদের মৃত্যু ঘটত, তাই যারা আমার সাক্ষাতের আশা করে না আমি তাদের অবাধ্যতায় উদভ্রান্তের মতো ঘুরে বেড়াতে দিই। ’ (সুরা ইউনুস, আয়াত : ১১)
 
হাদিসে তাড়াহুড়ার অভ্যাসের নিন্দা করা হয়েছে এবং স্থিরতার প্রশংসা করা হয়েছে। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘ধৈর্য ও স্থিরতা আল্লাহর পক্ষ থেকে, আর তাড়াহুড়া শয়তানের পক্ষ থেকে। ’ (তিরমিজি, হাদিস : ২০১২)। তা ছাড়া স্থিরতার গুণকে মহান আল্লাহ ভালোবাসেন। ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, আবদুল কাইস বংশের প্রতিনিধিদলের নেতা আশাজকে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে এমন দুটি গুণ আছে, যা আল্লাহ তাআলা বেশি পছন্দ করেন। তা হলো সহিষ্ণুতা ও স্থিরতা। ’ (তিরমিজি, হাদিস : ২০১১)। অনেক সময় তাড়াহুড়া করে এমন এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যার কারণে লজ্জিত হতে হয়। আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনরা, কোনো ফাসেক যদি তোমাদের কাছে কোনো সংবাদ নিয়ে আসে, তবে ভালোভাবে যাচাই করে দেখবে, যাতে তোমরা অজ্ঞতাবশত কোনো সম্প্রদায়ের ক্ষতি করে না বসো। ফলে নিজেদের কৃতকর্মের কারণে তোমাদের অনুতপ্ত হতে হয়। ’ (সুরা হুজরাত, আয়াত : ৬)

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘কোনো লোকের মিথ্যাবাদী হওয়ার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট যে সে যা শুনে (সত্যতা যাচাই না করে) তা-ই বলে বেড়ায়। ’ (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ৫)

এইচএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়