প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মেহেন্দিগঞ্জে করোনার চেয়েও ভয়াবহ ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা ঠাই মিলছেনা হাসপাতালের মেঝেতেও

মনির দেওয়ান: [২] চারদিকে নদী বেস্টিত সারে চার লক্ষাধীক মানুষের চিকিৎসা সেবার একমাত্র বাতীঘর মেহেন্দিগঞ্জ স্বাস্থ্য কম্প্লেক্স।

[৩] দৈনিক শতশত ডায়রিয়া ও কলেরা রোগী হাসপাতালে সেবানিতে আসলেও ভর্তি হতে পারছেনা।মেজেতেও তিল পরিমান ঠাইনেই। (৪)হাসপাতাল ইমার্জেন্সি বিভাগ সুত্রে জানাযায় গত চারদিনে দুইশত ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হয়েছে।

[৪] রোগীদের অভিযোগ,ডায়রিয়ার রোগীদের হাসপাতালে বহির বিভাগে ডাক্তার দেখালেই ৫/৭ আইটেম টেস্ট ধরিয়ে দেন তাদের নির্ধারিত ডায়াগনিন্টিকে।

[৫] করোনা কালিন সময়ে ডাক্তারা কোয়ারেন্টাইন শিপ্টে থাকা ডাক্তার সংকটে পরে সেবানিতে আসা রোগীরা।কোন অদৃশ্য শক্তিতে ভাল ডাক্তাররা বেশীদিন ঠাই পাচ্ছেনা মেহেন্দিগঞ্জ স্বাস্থ্যকম্প্লেক্সে।

[৬] হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রহিমা জানায় গত সপ্তাহে তার শিশু কন্যার ডায়রিয়া দেখাদিলে ডাক্তার সজল দত্তকে দেখান কিন্তু আজ তার মাকে নিয়ে এসে ওই ডাক্তারকে পাচ্ছেনা

[৭] সুত্রে জানাযায়,সজল দত্তকে এ্যাটাস্টম্যান্টে অন্যত্র পাঠানো হয়েছে এ নিয়ে ক্ষুব্ধ রোগীরা।বহির বিভাগে দৈনিক শতশত রোগি দেখতেন সজল দত্ত সেই স্থানটি শুন্যপরে আছে এই মোহামারিতে।

[৮] এ বিষয়ে মেহেন্দিগঞ্জ পঃপঃকর্মকর্তা ডাক্তার রমিজ আহম্মেদ এর নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তাকে পাওয়া যায়নি।হাসপাতালে তার কক্ষেও পাওয়া যায়নি তাকে।

সর্বাধিক পঠিত