প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ভান্ডারিয়ায় সর্দি-জ্বরে স্কুলছাত্রের মৃত্যু, পুরো গ্রাম লকডাউন

মুহম্মাদ তাওহীদুল ইসলাম: [২] পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হয়ে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার (৩১মার্চ) দুপুরে উপজেলার পূর্ব ধাওয়া গ্রামে৤ ওই স্কুল ছাত্র করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে এমন সন্দেহে প্রশাসন মৃত ওই ছাত্রের বাড়ির আশপাশ সহ পুরো গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করেছেন । নিহত ওই স্কুল ছাত্র চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেন।

[৩] পিরোজপুর জেলা প্রশাসক আবু আলী মোহাম্মাদ সাজ্জাদ হোসেন জানান, ওই স্কুল ছাত্রটি বিদেশে অবস্থান করেনি বা সে বয়স্কও না তাই তার মৃত্যু করোনা আক্রান্ত হয়ে হয়েছে কিনা বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ আছে৤ তবুও এর প্রভাব বিস্তারের ঝুঁকি এড়াতে সেখানের লোকজনকে কোয়ারান্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

[৪] ভান্ডারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজমুল আলম ওই স্কুল ছাত্রের মৃত্যুর বিষযটি নিশ্চিত করে জানান, স্কুল ছাত্রের মৃতর খবর শুনে আমরা সেখানে গিয়াছিলাম৤ বিষয়টিতে আমাদের সন্দেহ হলে ওই স্কুলছাত্রের বাড়িসহ আশপাশের কিছু বাড়ির লোকজনকে ১৪ দিনের জন্য হোম কোয়ারেন্টেইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে৤ এ ছাড়া ওই স্কুল ছাত্র অসুস্থ হওয়ার পর সম্ভাব্য যে সব বাড়িতে সে ঘোরা-ঘুরি করেছে সে সব বাড়ির লোকজনকেও একই ভাবে হোমকোয়ারেন্টেইনে থাকতে বলা হয়েছে৤ ওই স্কুল ছাত্রের পরিবারের প্রয়োজনীয় সকল বাজার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হবে৤ আর এর রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত এ প্রক্রিয়ায় ওই গ্রাম চলবে৤ তবে ফলাফল নেগিটিভ হলে হোমকোয়ারেন্টেইন উঠিয়ে নেয়া হবে৤

[৪] এ ব্যাপারে ওই উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এইচ এম জহিরুল আলম বলেন, ওই স্কুল ছাত্র গত চার দিন আগে সর্দি-জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হন। মঙ্গলবার (৩১মার্চ) সকালে ওই স্কুল ছাত্রের পরিবারের পক্ষ থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে বিষয়টি অবহিত করেন। চিকিৎসকগণ তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসতে পরামর্শ দেন৤ কিন্তু তার পরিবার তাকে বাড়িতে রেখে স্থানীয় ভাবে সাধারণ চিকিৎসা করান। ওই দিন দুপুরে হঠাৎ তার মৃত্যু হয়। এ খবর পেলে আমরা ওই বাড়িতে যাই৤ তবে ওই স্কুল ছাত্র করোনা আক্রান্ত কিনা তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তার নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর-এ পাঠানো হয়েছে৤ এ ঘটনায় ঝুঁকি এড়াতে মৃত স্কুলছাত্রের বাড়িসহ পার্শ্ববর্তী বাড়িগুলো লকডাউন করা সহ স্থানীয় সকলকে কোয়ারেন্টিনে রাখার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

[৫] স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ছিদ্দিকুর রহমান টুলু ওই এলাকায় লক ডাউনের খবর নিশ্চিত করে বলেন, দুপুরের পর উপজেলা প্রশাসেনের কর্মকর্তারা সহ পুলিশ এসে ওই গ্রামের পূর্ব মোল্লার খাল থেকে জানালার খাল পর্যন্ত প্রায় ১৫০টি বাড়ি লক ডাউন করে দিয়েছেন৤

এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম বলেন, ওই বাড়ি ও আশপাশের বসতি এলাকা লকডাউন করে সকলকে ১৪ দিনের জন্য হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার ঘোষাণা দেয়া হয়েছে। এ সময় তিনি ওই সব পরিবারের সকল খাবার সরবরাহের দায়িত্ব নিয়েছেন বলে তিনি জানান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত