প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাকে বাঁশ-পেটা করে বাড়িছাড়া করল ছেলে

রবিন আকরাম: স্বামীর বসতভিটে থেকে উচ্ছেদ করা হল ৪৫ বছরের এক মধ্যবয়সী নারীকে। উচ্ছেদ করল তারই ছেলে। শুধু তাই নয়, ছেলের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলে তাকে বাঁশ-পেটাও করা হয় বলে জানা যায়। গ্রামবাসীদের সহায়তায় প্রাণে বেঁচে গেলেও ওই মহিলা তার দুই মেয়েকে নিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন তার বাবার বাড়িতে। ঘটনার পর থেকেই ছেলে ও তার স্ত্রী পলাতক বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মালদহের মানিকচক থানার নুরপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার শেখটোলা গ্রামে। গোটা ঘটনা জানিয়ে ছেলের বিরুদ্ধে মানিকচক থানার পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মা সাহেরা বেওয়া। অভিযুক্ত ছেলে শেখ নাসিম ও তার স্ত্রীর খোঁজ শুরু করেছে মানিকচক থানার পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন এর তথ্য মতে, প্রায় ১৪ বছর আগে মহিলার স্বামী লাল মহম্মদ মারা যান। তারপর থেকে তিন কন্যা ও এক পুত্র সন্তানকে নিয়ে বিড়ি বেঁধে সংসার চালিয়েছেন সাহেরা বেওয়া। ছেলে ও এক মেয়ের বিয়েও দিয়েছেন তিনি। বাকি দুই নাবালিকা মেয়ে কোয়েল ও পায়েল স্থানীয় নুরপুর হাই স্কুলে পড়াশুনা করছে। দু’বছর ধরে শারীরিকভাবে অসুস্থ তিনি। পরিশ্রম করার ক্ষমতা কিছুটা কমে গিয়েছে। বিড়ি বেঁধে আর রোজগার করতে পারছেন না।

সাহেরা বেওয়ার অভিযোগ, রোজগার করতে পারছেন না বলেই সংসারে ছেলের কাছে বিরক্ত হয়ে উঠেছেন তিনি। জুটেছে অত্যাচার। তিনদিন ধরে সেই অত্যাচার চরমে ওঠে বলে অভিযোগ। রোজগারের পরিমাণ না বাড়ালে ভাত জুটবে না বলেও হুমকি দেয় ছেলে। তারপর শুক্রবার মারধর করে তাকে বসতভিটা থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে তিনি মানিকচক থানার পুলিশের দ্বারস্থ হন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই মহিলা তার ছেলের বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগ করেছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত নাসিম শেখ ও তার স্ত্রীর খোঁজ মেলেনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ