প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিমানবন্দরে নগ্ন করে তল্লাশির জন্য কাতারের সরকারের বিরুদ্ধে ১৩ নারীর মামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কাতারের সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার ১৩ জন নারী। তাদের অভিযোগ, দোহার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাদেরকে কাপড় খুলে তল্লাশি করা হয়। যদিও এক বছরের বেশি সময় আগের এ ঘটনায় কাতার সরকার অস্ট্রেলিয়া সরকারের কাছে ক্ষমা চেয়েছে, তবুও মামলা করেছেন ভুক্তভোগী নারীরা।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ২০২০ সালের ২ অক্টোবর কাতারের দোহা বিমানবন্দরের একটি আবর্জনার বিনে প্লাস্টিকে মোড়ানো অবস্থায় এক নবজাতক উদ্ধার হয়।

এ ঘটনায় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সন্দেহবশত দেশটির রাষ্ট্রীয় বিমানসংস্থা কাতার এয়ারওয়েজে আসা ১৮ জন নারী যাত্রীকে উড়োজাহাজ থেকে নামিয়ে খোলা পরিবেশে নার্সের তত্ত্বাবধানে কাপড় খুলে তল্লাশি চালায়। তাদের মধ্যে ২ জন ব্রিটিশ এবং বাকি ১৬ জন নারী অস্ট্রেলীয়।

ভুক্তভোগী নারীরা জানান, পাঁচ মিনিট ধরে পরীক্ষা করে দেখার পর সন্দেহজনক কিছু না পাওয়ায় তাদেরকে ফের বিমানে নিয়ে আসা হয়।

দেশে ফিরে ঘটনার বিষয়ে তাদেরকে তল্লাশির আগে কিছু জানানো হয়নি এবং অনুমতি ছাড়া জোরপূর্বক তাদের সঙ্গে এমন আচরণ করা হয় বলে অভিযোগ জানান ওই নারীরা।

এ ঘটনায় কাতারের বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা ও প্রতিবাদ জানায় অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশ। পরিস্থিতি সামলাতে অস্ট্রেলিয়া সরকারের কাছে ক্ষমা চান কাতারের প্রধানমন্ত্রী খালিদ বিন খলিফা বিন আবদুলআজিজ আল থানি। পরে এ ঘটনায় দায়ী কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করে কারাগারে পাঠায় কাতার সরকার।

তবুও কেন মামলা করা হলো-এমন প্রশ্নে ওই নারীদের আইনজীবী ড্যামিয়েন স্টারজাকার বলেন, ‘আমার মক্কেলরা জানিয়েছেন, তারা যখন কাতার সরকারের কাছে ওই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন, (কাতার) সরকার কোনো উত্তর দেয়নি। তারা চান, কাতারের সরকার যেন এ ঘটনার জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কাছে ক্ষমা চায় এবং প্রতিশ্রুতি দেয়- ভবিষ্যতে এ রকম কোনো ঘটনা আর ঘটবে না।’

সূত্র: বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত