প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাহাড় ও চট্টগ্রামের ইটভাটা বন্ধের ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবী জানিয়ে মালিক ও শ্রমিকদের মানববন্ধন

চৌধুরী হারুনুর রশিদ:  পাহাড় ও চট্টগ্রামের ইটভাটা বন্ধের ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবী জানিয়ে মালিক ও শ্রমিকরা মানববন্ধন করেছে রাঙ্গুনিয়া ব্রীকফিল্ড মালিক ও শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার ২ মার্চ রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম সড়কের রাঙ্গুনিয়া এলাকা মানবনব্ধন করেছে ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও শ্রমিকরা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির সভাপতি ও ১৩ নং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন চৌধুরী মিল্টন, ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, ব্রীকফিল্ড সমিতির উপদেষ্টা সিরাজ উদ্দিন চৌধুরী,  রাউজান ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক কোম্পানি ১ নং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন মোস্তাফা জাহাঙ্গীর,  ছাত্র নেতা ছাদেক নুর টিপু, ব্রীকফিল্ড নেতা ইউছুপ চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা ইউসুফ মাতব্বর,  হাসান তালুকদার, মঞ্জর মিয়া কোম্পানি, শ্রমিক নেতা ইলিযাছ, ইউনুছ, আয়ত কোম্পানি, মোহাম্মদ কোম্পানি ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির সম্মানিত সদস্য ও রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম ট্রাক-মিনিট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সেকান্দর হোসেন চৌধুরী।

বাননববন্ধনে বক্তারা বলেন, কথাকথিত পরিবেশ বিদেরর করা রিট মামলায় শুধুমাত্র চট্টগ্রামের ব্রীকফিল্ডের বিরুদ্ধে রায় দেয়া হয়েছে যে রায় ষড়যন্ত্রের সামিল। বক্তারা রাঙ্গামাটি ও রাঙ্গুনিয়া এলাকার ১০ লক্ষ মালিক শ্রমিকের জীবন বাচাঁতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আকুল আবেদন জানান। বক্তারা বলেন, মানবতার মা আপনার প্রতিশ্রুত গৃহহীনদের ঘর তৈরীর করে দেয়ার যে পরিকল্পনা রয়েছে সে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হলে ব্রীকফিল্ড বন্ধ করতে তা উন্নয়নে বাধা গ্রস্থ হবে। জামায়াত বিএনপির দোসর আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বিদেশী বড়ো বড়ো ব্লক তৈরীর কোম্পানী গুলোর সাথে হাত মিলিয়ে চট্টগ্রামের ইট ভাটার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিয়েছেন।

আইনজীবী মনজিল মোরসেদ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করতে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়ন কর্মকান্ড গুলোকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে এই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তিনি আইনের মাধ্যমে সরকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে দেশে অর্থনৈতিক মন্দা ভাব তৈরী করেত বিদেশী ও জামায়ত বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়ণ করছে। দেশের মানুষ বেকার হয়ে পড়লে সরকারের যে কোন কর্মকান্ড করতে বাধা প্রাপ্ত হবে। তাই তথাকথিত পরিবেশবিদ আইনজীবী মনজিল মোরসেদ সরকারের উন্নয়নকে বাধা প্রাপ্ত করতের বিদেশী মিশনে নেমেছে বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।

বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আগামী ২ মাসের জন্য ব্রীকফিল্ড চালু রাখা সহ সরকারের নির্দেশনাকে কিছুটা শিথিল করে ব্রীকফিল্ড মালিক ও শ্রমিকদের জীবন বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানান। এছাড়া বক্তারা যতদিন ব্রীকফিল্ড মালিক শ্রমিকদের দাবী বাস্তবায়ন না হবে ততদিন আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

মানববন্ধন চলাকালে রাঙ্গামাটি চটগ্রাম সড়কে ২ ঘন্টার বেশী যাবনবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। আটকা পড়ে কয়েক শত যানবাহন।

উল্লেখ্য: পরিবেশ অধিদপ্তর প্রতিবছর অর্থের বিনিময়ে ছাড়পত্র দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে । দীর্ঘদিন ধরে পাহাড় কেটে  কচি কচি গাছ জ্বালানী হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে । বর্তমানে সরকার যুগউপযোগী ইট তৈয়ারীতে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহারে নির্দেশনা দিয়েছেন।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত