প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শেরপুরে গৃহ ও ভূমিহীন মানুষের স্বপ্নের ঠিকানা নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে

তপু সরকার: [২] শেরপুর সদর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে বাস্তহারা গৃহহীন, ভূমিহীন মানুষের ৩০টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।

[৩] শেরপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার,জনাব মোঃ ফিরোজ আল মামুন সাহেব, গত ২০ ডিসেম্বর রোববার চরপক্ষিমারী ব্যাঙের মোড় এলাকায় বাস্তহারা গৃহহীন, ভূমিহীনদের থাকার ঘর-গুলি নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন । পরিদর্শনে সঙ্গে ছিলেন শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিহা জামান শাপলা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মিজানুর রহমান।

[৪] পরিদর্শন শেষে উনার ফেসবুকে আবেগপ্লোত ভাষায় লেখেন গৃহহীন, ভূমিহীন মানুষের স্বপ্নের ঠিকানা নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। একটি পোষ্ট দিয়ে অনেকের মন কেড়ে নিয়েছেন।

[৫] আমাদেরে দেশে জলবায়ু পরিবর্তন ও বন্যার করাল গ্রাসে সবর্স্ব হারিয়ে প্রতি বছর উদ্ধাস্ত হচ্ছেন নদী পারের মানুষ। এসব ভাসমান মানুষের বেশির ভাগেরই ঠিকানা জেগে উঠা নতুন চর, বেড়িবাধঁ না হয় আশ্রয় কেন্দ্রে। আশ্রয় নিলেও তাদের জীবনে স্বস্তি নেই অর্শ্নতাব্দী ধরে তাদের লড়াই করতে হচ্ছে দস্যু লোটেরা ভূমি খেকোদের সঙ্গে।

[৬] মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার স্ব-ইচ্ছায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে গৃহহীন, ভূমিহীন মানুষের জন্য সরকারী খাস জমিতে তাদের স্বপ্নের চোখে বাতিঘর তৈরী করছেন।

[৭] শেরপুরের গণ-মানুষের নেতা সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক (এম পি) এবং জেলা প্রশাসনের প্রচেষ্টায় এ-প্রল্পের শেরপুর সদর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে ৩০টি ঘর নির্মাণের প্রায় শেষ পর্যায়ে। প্রশাসনের সরাসরি তদারকিতে শেরপুর সদরের ১নং- কামারেরচর ইউনিয়ন, ৬নং- পাকুরিয়া ইউনিয়ন ৮নং- লছমনপুর ইউনিয়ন ও ১০ নং- চরপক্ষিমারী নিয়ে মোট ৩০টি ঘর যার প্রতিটি ব্যায় হবে ১লাখ ৭১ হাজার টাকা। এ-প্রকল্প ব্যায় মোট টাকা ৫১ লাখ ৩০হাজার টাকা। সম্পাদনা: হ্যাপি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত