প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নেতার মামলায় সাক্ষ্য না দেওয়ায় তুলে নিয়ে হত্যার অভিযোগ

অহিদ মুকুল : [২] যুবলীগ নেতার মামলায় সাক্ষ্য না দেওয়ায় রাসেল আমিন (৪৮) নামে এক টাইলস মিস্ত্রিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরশাহী ইউনিয়ন থেকে তুলে নিয়ে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মারধর ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

[৩] বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে নোয়াখালী বেগমগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর সীমান্তবর্তী ছয়ানী ইউনিয়নের আমিরপুর গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে।

[৪] রাসেল আমিন লক্ষ্মীপুর জেলার সদর উপজেলার চরশাহী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব সৈয়দপুর গ্রামের নজম উদ্দিন পাঠোয়ারী বাড়ির তছির আহমেদের ছেলে।

[৫] বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন উর রশীদ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লক্ষ্মীপুর জেলার সদর উপজেলার চরশাহী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক রিয়াজ বর্তমানে দু’টি মামলায় জেলে রয়েছে। তার একটি মামলায় সাক্ষী ছিলো রাসেল। রিয়াজ খারাপ প্রকৃতির লোক হওয়ায় রাসেল ওই মামলায় সাক্ষ্য দিতে অনীহা প্রকাশ করে।

[৬] বুধবার সন্ধ্যার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরশাহী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের জাফরপুর এলাকার তায়ের মার্কেট সংলগ্ন কালার পোল ব্রিজে দাঁড়িয়ে ছিলো রাসেল। একপর্যায়ে একই এলাকার শান্ত নামে এক যুবক ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা রাসেলকে ব্রিজের উপর থেকে ধরে নিয়ে মারধর করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে মরদেহ লক্ষ্মীপুর-নোয়াখালীর সীমান্তবর্তী নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানি ইউনিয়নের একটি ধানক্ষেতে ফেলে দিয়ে যায়। অভিযুক্ত শান্ত দু’দিন আগে লক্ষ্মীপুর কারাগার থেকে জামিনে বেরিয়ে আসে। রিয়াজের মামলায় সাক্ষ্য না দেওয়ার জেরে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত শান্ত চরশাহী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কালা মিয়া ব্যাপারি বাড়ির আব্দুল মোতালেব প্রকাশ কালা মিয়ার ছেলে।

[৭] ওসি আরো জানান, মরদেহ উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে। পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখে এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত