প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডেমরায় খানাখন্দ ও কর্দমাক্ত সড়কে সীমাহীন দুর্ভোগ

মো. বশির উদ্দিন :[২] রাজধানীর ডেমরায় খানাখন্দ ও কর্দমাক্ত সড়কে দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। অল্প বৃষ্টিতে ডেমরা-রামপুরা ও ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কের বড় বড় গর্তে জমেছে বৃষ্টির পানি। এতে যাত্রী ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মক সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসী ও যাত্রী সাধারণের।

[৩] ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ৬৪ ও ৬৫ নম্বর ওয়ার্ডের কিছু অংশসহ ৬৬ থেকে ৭০ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা হচ্ছে রাজধানীর ডেমরা থানা এলাকা। শহরের খুব কাছাকাছি হওয়ায় স্বাধীনতার পর থেকে এখানে ঘনবসতি বাড়তে থাকে। বর্তমানে এখানে স্থানীয় ও ভাড়াটিয়াসহ ১০ লক্ষাধিক মানুষের বসবাস। এছাড়াও সরকারি-বেসরকারি চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ীস, শ্রমিক ও অন্যান্য পেশার মানুষসহ রূপগঞ্জ-সিদ্ধিরগঞ্জ ও আশপাশের এলাকার আরও লক্ষাধিক মানুষের চলাচল ডেমরায়। এদিকে ডেমরা হচ্ছে রাজধানীর প্রবেশদ্বার। তাই এখানে মানুষের চলাচল অনেক বেশি। আর বর্ধিত মানুষের এ চলাচলকে কেন্দ্র করে ডেমরাকে শহরের শেষ স্টপেজ করা হয়েছে।

[৪] সরেজমিন দেখা গেছে, কিছুদিন আগেই শুরু হয়েছে ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কের ৬ লেন উন্নয়নের কাজ। এতে ডেমরার ষ্টাফ কোয়ার্টারে সড়ক খোঁড়াখুড়িসহ সড়ক উন্নয়নে চলছে নানা কর্মযজ্ঞ। এদিকে ষ্টাফ কোয়ার্টারেই এবারের বর্ষায় ডেমরা-রামপুরা সড়ক ব্যাপকভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে। ফলে যান চলাচল ও যাত্রী-পথচারী দুর্ভোগ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। এছাড়া এ সড়কে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে অতিরিক্ত পণ্যবাহী ভারী যানবাহন চলাচল করছে বলেও সড়কের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সড়কে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তসহ খানাখন্দ। আর ওইসব বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দে পানি জমে থাকে বলে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। রিকশা উল্টে পড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে অহরহ। আর কর্দমাক্ত এ সড়কে মানুষের স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

[৫] ডেমরার হাজী হোসেন প্লাজা শপিংমলের ব্যবসায়ী মো. সোহেল বলেন, আমাদের মার্কেটের পূর্বপাশেই বাস স্টপেজ করাতে সড়কের ব্যাপক ক্ষতি হয়। আর এ স্টপেজেই বড় বড় গর্ত তৈরী হয়েছে। এতে মার্কেটের ফুপাত দিয়েও হাঁটা যায়না। এছাড়া সড়কের ওইসব গর্তসহ খানাখন্দে যানবাহন হেলেদুলে চলে। এতে দুর্ঘটনার আশংকা থাকেই।

[৬] দুর্ভোগের বিষয়ে ডেমরা-রামপুরা সড়কে চলাচলকারী যাত্রী মো.ছালাম বলেন, আমি প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করি। ডেমরা-রামপুরা সড়কের বেশ কিছু অংশে খানা-খন্দ রয়েছে। এতে বৃষ্টির সময় যাত্রী দুর্ভোগ কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়।

[৭] ডেমরা জোনের টিআই মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে ডেমরা-রামপুরা সড়কের ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া এ সড়কের কিছু অংশের খুব খারাপ অবস্থা। তাই দুর্ভোগ অনেকটাই বেড়েছে। এছাড়া সড়কে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির পানি সরতে পারেনা বলে সড়কের বেশি ক্ষতি হচ্ছে।

[৮] ঢাকা সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শামীম আল মামুন মোবাইল ফোনে বলেন, ডেমরা-রামপুরা সড়কে দীর্ঘ দিন ধরে ধারাবাহিকভাবে সংস্কার কাজ চলছে। তবে বৃষ্টির কারণে ডেমরা এলাকায় ওই সড়কের কাজটা করা যাচ্ছেনা। বৃষ্টি কমলেই দ্রুত কাজ করা হবে। সম্পাদনা : হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত