প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডিএনসির অভিযানে বিপুল পরিমান ইয়াবা উদ্ধার, সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ আটক পাঁচ

সুজন কৈরী : [২] রাজধানীর দক্ষিণ বনশ্রী মসজিদ মার্কেট এলাকায় মঙ্গলবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার এক নম্বর কাশিনগরের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হক (৬২) ও তার দুই সহযোগীকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)। দুই সহযোগী হলেন- আরিফুল ইসলাম (২৫) এবং সফিউল্লাহ ওরফে সাদ্দাম (২৮)।

[৩] এছাড়া পৃথক অভিযানে পুরান ঢাকার শ্যামপুরের ফরিদাবাদ এলাকা থেকে ১ হাজার ৬০০ পিস ইয়াবাসহ আফসানা (২৭) নামের একজন নারী মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়।

[৪] এ দুটি অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া ডিএনসির ঢাকা মেট্রো (দক্ষিণ) কার্যালয়ের মতিঝিল সার্কেলের ভারপ্রাপ্ত পরিদর্শক সুমনুর রহমান বলেন, আটক নুরুল হক ২০০৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। এরপর একপর্যায়ে শুরু করেন মাদক ব্যবসা। কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে তৈরি করেন সিন্ডিকেট। কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ইয়াবা এনে ঢাকার বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ীর কাছে সরবরাহ করতেন।

[৫] নুরুলকে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে সুমনুর রহমান জানান, কুমিল্লার সোয়াগাজী সীমান্ত এলাকা থেকে ইয়াবাগুলো সংগ্রহ করেন। এরপর ঢাকায় আনতে আইনশৃক্সক্ষলা বাহিনীকে ফাঁকি দিতে তারা প্রথমে হিউম্যান হলারে করে কুমিল্লার বিশ্বরোড পর্যন্ত, সেখান থেকে ক্যান্টনমেন্ট পর্যন্ত মাইক্রোবাসে, সেখান থেকে কুমিল্লার গৌরীপুর ও সেখান থেকে চিটাগাং রোড পর্যন্ত লোকাল বাসে এবং সেখান থেকে সিএনজি অটোরিকশায় করে বনশ্রী এলাকায় যান। ইয়াবাগুলো রামপুরার একজন মাদক ব্যবসায়ীর কাছে সরবরাহের কথা ছিল।

[৬] আটকরা জানিয়েছে, তারা টেকনাফ থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে কুমিল্লার সোয়াগাজী সীমান্ত এলাকায় মজুদ করে রাখে। ঢাকার মাদক ব্যবসায়ীদের চাহিদামত সেখান থেকে ইয়াবা এনে ঢাকায় সরবরাহ করে আবার চলে যায়।

[৭] ডিএনসি কর্মকর্তা সুমনুর জানান, এ চক্রটিকে ধরতে বেশ কিছুদিন ধরেই কাজ চলছিল। এরই প্রেক্ষিতে ইয়াবার একটি চালান আসার তথ্যে মঙ্গলবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্যে জানা যায়, সোমবারও চক্রটি একইভাবে কুমিল্লা থেকে ঢাকায় এসে একজন নারী মাদক ব্যবসায়ীর কাছে ৩ হাজার পিস ইয়াবা সরবরাহ করেছে। পরে তাদের নিয়ে ফরিদাবাদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে আফসানাকে ১ হাজার ৬০০পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়।

[৮] আটকদের বিরুদ্ধে রাজধানীর শ্যামপুর ও খিলগাঁও থানায় পৃথক দুটি মাদক মামলা হয়েছে বলে জানান সুমনুর রহমান।

[৯] অপরদিকে মঙ্গলবার দুপুরে ভাটারা এলাকার প্রগতী স্মরণীর কাজী ফামর্সের সামনে থেকে তানভীর রহমান রতন (৩৪) নামের একজনকে ৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক করেন ডিএনসির গোয়েন্দা বিভাগের পরিদর্শক হোলাল উদ্দিন খান। তানভীর ইয়াবাগুলো পায়ের হাঁটুর নিচে স্কচটেপ দিয়ে পেচিয়ে রেখেছিলেন। ইয়াবা ছাড়াও তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন ও একটি পালসার মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। আটক রতনের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মাদক আইনে মামলা হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত