প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বন্যার পূর্বে ছেলেকে ফোন করেছিলেন নূহ (আ.)!

মুফতি আবদুল্লাহ তামিম : তুরস্কের একজন অধ্যাপক দাবি করেছেন যে, নবী নূহ (আঃ)-এর যুগে পৃথিবীব্যাপী বন্যার পূর্বে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার পুত্রকে ডেকেছিলেন। তিনি বলেন, ‘ইসলাম ধর্মের ধর্মগ্রন্থ কুরআন ও খ্রিস্টীয় ধর্মের ধর্মগ্রন্থ ওল্ড টেস্টামেন্ট উভয় গ্রন্থেই এ বিষয়ে বর্ণনা করা হয়েছে।

তুরস্কের ইস্তামবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামুদ্রিক বিজ্ঞান অনুষদ বিভাগের অধ্যাপক ইয়াভুজ অর্নিক, শনিবার তুরস্কের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম টিআরটি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দেয়ার সময় এই তথ্যটি উপস্থাপন করেন।

তিনি দাবি করেন, ‘নবী নূহ আ:-এর বন্যায় ৩০০ থেকে ৪০০ মিটার উঁচু ঢেউ ছিল। আর নবী নূহ আ. পুত্র সাম অনেক দূরে অবস্থান করছিলো। কুরআনেও আছে তিনি পুত্রের সাথে কথা বলেছেন। কিন্তু তারা কিভাবে যোগাযোগ করেছিলেন, এটি একটি অলৌকিক ঘটনা। আমরা বিশ্বাস করি, তিনি সেল ফোনের মাধ্যমে তার পুত্রের সাথে যোগাযোগ করেছেন। টেলিভিশনের সাক্ষাৎকারে তিনি এই কথা বলেন।

অর্নিক আরো দাবি করেন, হযরত নূহ আ. যে ইস্পাত ব্যবহার করে জাহাজ তৈরি করেছেন, সেই শক্তি ছিলো পারমাণবিক শক্তি। তিনি আরো যোগ করেন যে ‘আমি একজন বিজ্ঞানী এবং আমি বিজ্ঞানের দৃষ্টিতেই কথা বলি।’ আল-আরাবিয়া

উল্লেখ্য, কুরআনে সুরা হুদে এই ঘটনা এভাবে এসছে যে, এ (বন্যার) সময় নূহ তার পুত্রকে (সামকে) ডাক দিল- যখন সে দূরে ছিল, হে বৎস! আমাদের সাথে আরোহণ কর, কাফেরদের সাথে থেকো না’। ‘সে বলল, অচিরেই আমি কোন পাহাড়ে আশ্রয় নেব। যা আমাকে প্লাবনের পানি হ’তে রক্ষা করবে’। নূহ বলল, ‘আজকের দিনে আল্লাহর হুকুম থেকে কারো রক্ষা নেই, একমাত্র তিনি যাকে দয়া করবেন সে ব্যতীত। এমন সময় পিতা-পুত্র উভয়ের মাঝে বড় একটা ঢেউ এসে আড়াল করল এবং সে ডুবে গেল’। (৪২,৪৩)

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত