শিরোনাম
◈ প্রাইভেটকারের ওপর গার্ডার: ক্রেনের চালক ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা ◈ গার্ডার চাপায় নিহতদের ময়নাতদন্ত হবে সোহরাওয়ার্দীর মর্গে ◈ উত্তরায় দুর্ঘটনা: শিশু জাকারিয়া জীবিত ছিল আধাঘণ্টা ◈ পুলিশের উদ্দেশ্যই ছিল ছাত্রলীগের ছেলেদের মারবে: এমপি শম্ভু ◈ রাজধানীতে ক্রেন থেকে রড পড়ে ৫ পথচারী আহত ◈ চকবাজার ও উত্তরার ঘটনায় শোক জানিয়ে তদন্তের দাবি ফখরুলের ◈ মানবাধিকারকর্মীদের কথা শুনলেন জাতিসংঘের মিশেল ব্যাচেলেট ◈ উত্তরায় ক্রেন দুর্ঘটনা: বেঁচে রইলেন শুধু নবদম্পতি ◈ খায়রুনকে লাথি মেরে সেই রাতে বাইরে যান স্বামী ◈ উত্তরায় প্রাইভেট কারের উপর ফ্লাইওভারের গার্ডার, নিহত ৫ (ভিডিও)

প্রকাশিত : ০৫ আগস্ট, ২০২২, ০৮:৪১ সকাল
আপডেট : ০৫ আগস্ট, ২০২২, ০২:৩২ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ার প্রথম হিজাব পরিহিত সিনেটরের প্রত্যাশা 

অল্পবয়সী মেয়েরা গর্ব করেই হিজাব পরার সিদ্ধান্ত নিবে

ফাতিমা পেমান

ওয়ালিউল্লাহ সিরাজ: অস্ট্রেলিয়ার লেবার পার্টির বর্তমান সিনেটর সদস্য আফগানিস্তানের মেয়ে ফাতিমা পেমান পার্লামেন্টে বলেন, আমি চাই যে অল্পবয়সী মেয়েরা গর্বের সঙ্গেই হিজাব পরার সিদ্ধান্ত নিবে। কারণ এটা তাদের অধিকারের মধ্যে পড়ে। আমি আশা করি না যে মানুষ আমার স্কার্ফ পরা নিয়ে বিচার করবে। গার্ডিয়ান, বিবিসি

ফাতেমা আরো বলেন, আমি তরুণ ও প্রগতিশীল। আমার পরিবারের জন্ম অন্য দেশে।  পার্লামেন্টের বক্তৃতায় তিনি আরো বলেন, আমি আধুনিক অস্ট্রেলিয়ার একজন প্রতিনিধি। আমি বিশ্বাস করি হিজাব পরা সিনেটরের সংখ্যা এতোটই বেড়ে যাবে যে, তারা আর নিউজের শিরোনাম হবেন না।  

তিনি পার্লামেন্টে ঘটা পাঁচ বছর আগের কথাও বলেন, সেদিন সিনেটর পলিন হ্যানসন বোরকা পরে পার্লামেন্টে এসেছিলেন। তিনি হিজাব পরা নিষেদ্ধেরও আহ্বান করেছিলেন। এটা ছিলো সকল মুসলিমদের জন্য অসম্মানজনক বিষয়। 

২৭ বছর বয়সী ফাতেমা অস্ট্রেলিয়ার সিনেটে হিজাব পরা প্রথম নারী হিসেবে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন। সাংস্কৃতিকভাবে ভিন্ন একাধিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে কাজ করার রেকর্ডও আছে তার ঝুলিতে। ফাতেমা প্রথম থেকেই শ্রমিক-শ্রেণির পক্ষে কথা বলে এসেছেন। তার বাবা একসময় ট্যাক্সি চালিয়ে সংসারের ব্যয়ভার বহন করতেন। ফাতিমাকে তার বাবাই রাজনীতিতে আসতে উৎসাহিত করেছেন। 

একসময়  তার বাবা ভেবেছিলেন অস্ট্রেলিয়ায় হয়তো ফাতিমা সেরকম কোনো সুযোগ পাবে না। তাকে কিছু করলে হলে আফগানিস্তানে ফিরে গিয়েই করতে হবে। ফাতিমার বাবা এখন বেঁচে নেই। বেঁচে থাকলে হয়তো ফাতিমার সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর তাকে নিয়ে খুব গর্বিত হতেন। 

  • সর্বশেষ