শিরোনাম
◈ পুলিশকে স্মার্ট বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে: আইজিপি ◈ বিএনপির নেতাকর্মীদের কারাগারে পাঠানো সরকারের প্রধান কর্মসূচি: মির্জা ফখরুল ◈ উপজেলায় ভোট কম পড়ার বড় কারণ বিএনপির ভোট বর্জন: ইসি আলমগীর  ◈ আত্মহত্যা করা জবির সেই অবন্তিকা সিজিপিএ ৩.৬৫ পেয়ে আইন বিভাগে তৃতীয় ◈ কুমিল্লায় ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় ৭ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৭ জনের যাবজ্জীবন ◈ গোপনে ইসরায়েলে অস্ত্র পাঠাচ্ছে ভারত, জাহাজ আটকে দিয়েছে স্পেন ◈ দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা নির্বাচন: ৬১৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৪৫৭ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন ◈ উপজেলা নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ৭১ শতাংশ প্রার্থী ব্যবসায়ী, কোটিপতি ১১৬ জন: টিআইবি ◈ ৩ বাসে ভাঙচুর, ট্রাফিক বক্সে আগুন, গুলিবিদ্ধ ১ ◈ ঢাকা মহানগরীতে ব্যাটারি-মোটরচালিত রিকশা চললেই ব্যবস্থা: বিআরটিএ

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১১:৩৪ রাত
আপডেট : ২৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১১:৩৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

রায়পুরে মেয়রের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করায় মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

রাকিবুল ইসলাম, লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ডাক্তার মঞ্জরুল আলম নামে এক বীর মুক্তিযোদ্ধার কুশপুত্তলিকা জ্বালিয়ে ও ঝাড়ু মিছিল করেছে আমরা পৌরবাসীর ব্যানারে পৌরসভার মেয়র গিয়াসউদ্দিন রুবেল ভাটের লোকজন।

বুধবার (২৩ এপ্রিল) বিকেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জরুল আলমের কুশপুত্তলিকায় জুতার মালা পরিয়ে মেয়র গিয়াসউদ্দিন রুবেল ভাটের কার্যালয়ের সামনে হাজির হয় তার অনুসারীরা। মিছিল নিয়ে প্রবেশকালে জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগানের পাশাপাশি ভুয়া মঞ্জুর দুই গালে জুতা মারো তালে তালে বলেও স্লোগান দিতে দেখা যায় তাদের। পরে রায়পুর পৌর শহরের মুরিহাটা থেকে শুরু করে রায়পুর আলিয়া মাদ্রাসা সড়ক, রায়পুর সিনেমাহল সড়ক হয়ে কুশপুত্তলিকাবাহী মিছিলটি রায়পুর থানার পূর্বপাশ্বে প্রাইম ব্যাংকের সামনে এসে জড়ো হয়। এরপর পুনরায় পূর্বের স্লোগান ধরে ঐ বীর মুক্তিযোদ্ধার কুশপুত্তলিকায় আগুন জ্বালিয়ে দেয় মেয়রের অনুসারীরা। 

পরে পুড়তে থাকা কুশপুত্তলিকার সামনে দাড়িয়ে মেয়র গিয়াসউদ্দিন রুবেল ভাটের পক্ষে বক্তব্য দেন পৌরসভার লাইসেন্স পরিদর্শক পীরজাদা আরমান হোসেন, রায়পুর পৌরসভার কর্মচারী মহিউদ্দিন বিপু, রায়পুর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা তানভীর হায়দার চৌধুরী রিংকু, এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা উপজেলা যুগ্ন আহবায়ক রানা দেওয়ানজি ও ছাত্রলীগ নেতা শিহাব দেওয়ানজি। 

জানা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জরুল আলম সাবেক জেলা ডেপুটি কমান্ডার ও আমেরিকা প্রবাসী। 

এবিষয় মঞ্জুরুল আলম বলেন, দেশটা কী স্বাধীন করেছি এমনভাবে অপমানিত হওয়ার জন্য! আমার কুশপুত্তলিকা দাহ করেনি তারা। আমি মনে করি মেয়র গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস কে দাহ করেছে। ১০ লাখ টাকা চাঁদা না দেওয়ায় মিথ্যা মামলা করে আমাদের নামে। একাত্তরেও এমন দুষ্ট লোক ছিলো আমরা তাদের হটিয়ে দেশকে শত্রুমুক্ত করেছি। আমি মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তারা যেন এই দুষ্ট ও অর্থলোভী মেয়রের বিচার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেয়র গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট বলেন, নাগরিকরা কী করেছে সেটি তাদের ব্যাপার। আমি গতকাল (২২ এপ্রিল) রাত দুইটায় ঢাকা থেকে ফিরেছি। আজ রাত আটটায় ঐ বীর মুক্তিযোদ্ধার কুশপুত্তলিকা দাহের ভিডিও ফেসবুকে দেখেছি। এসব আমি করাইনি। মেয়র রুবেল ভাট এমন দাবি করলেও কুশপুত্তলিকা দাহের প্রস্তুতিমুহুর্তে স্বশরীরে উপস্থিত ছিলেন তার ছোটো ভাই নুর উদ্দিন ভাট শিপলু।

উল্লেখ্য যে, উপজেলার সিনেমা হল রোডে ভবন নির্মাণে গত ৪ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা ও তার অংশীদারের কাছে ১০ লাখ চাঁদা দাবি করে মেয়র গিয়াসউদ্দিন রুবেল ভাট মর্মে উল্লেখ করা হয়। সেই ঘটনার পর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জরুল আলম ও অংশীদারদের নামে মামলাও দায়ের করে মেয়রের অনুসারীরা। পরে মেয়র গিয়াস উদ্দিনের পেশিশক্তির দাপটে কোথাও প্রতিকার না পেয়ে রোববার (২১ এপ্রিল) মেয়র গিয়াসউদ্দিন রুবেল ভাটকে প্রধান আসামি করে ৫জন পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীর নামে মামলা দায়ের করেন মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জরুল আলম। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়