প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খুজিস্তা নূর-ই নাহারিন: মানুষ ঠকানোর চিন্তা আপনার জীবনী শক্তি কেড়ে নেয়

খুজিস্তা নূর-ই নাহারিন: জীবনের প্রতি আকর্ষণ ফুরিয়ে গেলে মানুষ মৃত্যুকে আহŸান করে। তাই যেকোনো উপায়েই হোক এই আকর্ষণকে ধরে রাখতে হবে, হতাশ হওয়া চলবে না। সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য অর্থহীন হলেও কিছু ভালো লাগার মুহূর্ত প্রয়োজন। বিশ্বস্ত একজন মানুষ প্রয়োজন, যার সঙ্গে নির্দ্বিধায় একান্ত গোপন কথাগুলো শেয়ার করা যায়। জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি, যারা নিজের মৃত্যুর কথা বেশি বলে তাঁরাই দ্রæত অসুস্থ হয়, মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে। তবে কি অবচেতনে তাঁরা মৃত্যুকেই কাছে ডাকে? ভুলেও বারবার নিজের মৃত্যুকে কাছে ডাকবেন না। দিনের নির্দিষ্ট একটা সময় একা থাকা প্রয়োজন, যে সময়টা কেবলই আপনার। নিজের ব্রেইন, বুদ্ধি আর শরীর রেস্ট নেবে, কেবল হৃদয় কথা বলবে। নিজের ভালো লাগা নিয়ে ভাবুন, নিজের সুখের স্মৃতি রোমন্থন করুন, দেখবেন আপনার জীবনে পাওয়ার শেষ নেই। বেশি সময় ধরে দুঃখ কিংবা কষ্টের স্মৃতি বহন করলে মানুষ ক্লান্ত হয়ে পড়ে, মানসিক অবসাদগ্রস্ততা এসে ভর করে। মানুষ ঠকানোর চিন্তা আপনার জীবনী শক্তি কেড়ে নেয়। অতিরিক্ত হিংসা, লোভ, ক্রোধ আর আহংকার আপনাকে বিন্দুমাত্র শান্তিতে থাকতে দেয় না। ক্ষমা করতে শিখুন। ক্ষমা কেবল মহানুভবতা নয় আপনার নিজের স্বস্তি আর শান্তির জন্য অতীব জরুরি। কিছু কিছু বেঁচে থাকা মৃত্যুর চেয়েও ভয়ঙ্কর। দোয়া- ‘মহান আল্লাহ তাঁদের কষ্ট কমিয়ে দিন।’

প্রায় প্রতিটি মানুষের জীবনে সুখ-অসুখ, পাওয়া-না পাওয়া থাকে। কে কীভাবে গ্রহণ করছেন সেটাই আসল। জীবন যতো কঠিনই হোক তাঁকে গ্রহণ করা ছাড়া উপায় নেই, যতো সহজে যতো তাড়াতাড়ি গ্রহণ করতে পারবেন ততোই মঙ্গল। কারণ শত চেষ্টাতেও আমরা ভাগ্যকে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা রাখি না। কোনো কোনো মানুষ অল্পতেই খুশি হয়, অতিরিক্ত দম্ভ বা অহঙ্কারে কেউ আবার খুশি হওয়ার ক্ষমতাটাই হারিয়ে ফেলে। জীবন এক সদা চলমান প্রক্রিয়া। আনন্দ, বেদনা, সুখ, দুঃখ, ক্ষমতা কোনো কিছুই এখানে চিরস্থায়ী নয়। কোনো কিছু নিয়ে অহঙ্কার করার যেমন কিছু নেই তেমনি দুঃখ করারও কিছু নেই। আজ যা জয় দু’দিন পর সময়ের ফেরে তাই হয়তো পরাজয়। জীবন সায়াহ্নে সবকিছু, সমস্ত জীবন অলীক কল্পনা মাত্র। জীবনের পথ কখনো সরল কখনো বন্ধুর। সবাই ভিন্নভাবে মূলত একই পথ পাড়ি দেয়। কারও কারও কষ্ট আমরা দেখি কারওটা দেখি না। সত্য যতো কঠিনই হোক সহজে মেনে নিতে পারার ক্ষমতা থাকা চাই। সন্তান মানুষ হওয়া মানে কেবল ভালো ছাত্র হওয়া কিংবা বিনয়ী হওয়া নয়, বরং বিরুদ্ধ পরিবেশে কীভাবে টিকে থেকে অন্যদের রক্ষা করতে পারবে তা বোঝায়।

জীবনে বৈচিত্র্য না থাকলে একঘেয়েমি বাসা বাঁধে। প্রাত্যহিক খাওয়া, পোশাকের রং, ঘর সাজানো বড় কিছু না হলেও ছোট ছোট বিষয়ে বৈচিত্র্য আনার চেষ্টা করুন। সবচেয়ে ভালো হয় পজেটিভ কোনো মানুষের সঙ্গে আড্ডা বা সময় কাটাতে পারলে। যানজটের এ শহরে কিছুটা সময় পার্কে গাছপালার সঙ্গে কাটাতে পারলে মন্দ হয় না। অবসাদগ্রস্ত মানুষের জন্য ছোট্ট শিশুর কোনো বিকল্প নেই। নিষ্পাপ শিশুর মাঝে এমন এক ক্ষমতা থাকে তাঁর চারপাশের সবাই সুখ পায়। বিদেশে মানসিক স্বাস্থ্য এবং একাকীত্ব ঘোচানোর জন্য তাঁরা কুকুর, বিড়াল এবং নানাবিধ প্রাণী পোষে। বারান্দা কিংবা মাঠে পাখির খাবার রাখে। অনেক মানুষ দিনের বেশিরভাগ সময় নষ্ট করে পরচর্চায়। পারলে নিছক গীবত বা নিন্দা করা ছেড়ে দিন, এতে কেবলই সময়ের অপচয় কারণ এতে করে তাঁর কোনো অনিষ্ট বা অপকার হয় না। বরং নিজেকে নিয়ে ভাবুন, উক্ত সময়টাকে নিজের কাজে লাগান। অনেকে কেবলই ভাগ্যকে দোষারোপ করে, কেবলই অভিযোগের পাহাড়। এমন মানুষদের জন্য ভাগ্য কেবল বিড়ম্বনাই নিয়ে আসে। ভেবে দেখুন আপনার যা কিছু আছে অন্যদের তা নেই। তবে সৃষ্টিকর্তা একা আপনাকেই সব কিছু দেবেন কেন? মহামানব এমনকি পৃথিবীর বিখ্যাত সব মানুষদের জীবনী একেকটা কষ্টের উপাখ্যান। জীবনের শুরুর সময়টাতে যারপর নাই কষ্ট আর প্ররিশ্রম করে জীবনটাকে পোক্ত করে নিয়েছেন কেবলই। পারলে প্রতিদিন সাধ্যের মাঝে অন্তত একটি ভালো কাজ করার চেষ্টা করুন যা আপনাকে আনন্দ দেবে, আত্মসম্মান আর আত্মবিশ্বাস বাড়াবে। শুভ সকাল, আজকের দিনটি আপনাদের আনন্দে কাটুক। ফেসবুক থেকে

সর্বাধিক পঠিত