প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নারায়ণগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে সংঘর্ষ, গুলি, প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা , আহত ১৫

মোশতাক আহমেদ : [২] নারায়ণগঞ্জের ৩টি উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ চলছে। তরে বন্দরের ধামগড়ে রাতে ফাঁকা কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালটে সিল মারতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশের গুলিতে (রাবার বুলেট) ১০ থেকে ১৫ জন আহত হয়েছে। কলাগাছিয়ায় নৌকার সমর্থকরা লাঙ্গলের প্রার্থীর উপর হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ছিলো রাতের চিত্র।

[৩] বৃহস্পতিবার সকালে ভোট গ্রহণ শুরুর সাথে সাথে বিভিন্ন স্থানে কেন্দ্রের ভেতর প্রভাব বিস্তারের ঘটনা দৃশ্যমান হতে থাকে। নারায়ণগঞ্জ গর্ভমেন্ট গালর্স স্কুল কেন্দ্রে এক সংরক্ষিত ওয়ার্ডের এক মহিলা প্রার্থীর (প্রতীক বক) সমর্থকদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। সেখানে অন্য এক মহিলা প্রার্থীর (প্রতীক কলম) পক্ষে সিল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

[৪] বুধবার রাত ১২ টার দিকে সংঘাতের বিষয়ে ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান (স্বতন্ত্র) প্রার্থী কামাল হোসেন গণমাধ্যমে অভিযোগ করেছেন, সন্ধ্যার পর থেকেই আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী মাসুমের সমর্থকরা নৌকা প্রতীকে পুলিশের সহযোগিতায় বিভিন্ন কেন্দ্র দখল করে ভেতরে অগ্রিম সিল মেরে রাখছিল।

[৫] এ ঘটনায় আমরা বার বার চেষ্টা করেও থামাতে পারিনি। পরে তারা জাঙ্গাল কেন্দ্রেও একই কাজ করার সময় পুলিশ ও নৌকার সমর্থকদের এলাকাবাসী আটকে ফেলে। পরে তারা পুলিশের সহযোগিতায় পালাতে চেষ্টা কওে এবং তাদের বাঁচাতে পুলিশ আমাদের লোকজনের ওপর রাবার বুলেট ছুড়ে। আমাদের ১০ থেকে ১৫ জনের মত লোকজন আহত হয়েছে।

[৬] এদিকে মাসুম চেয়ারম্যান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী কামালের সন্ত্রাসী বাহিনী এই ঘটনা ঘটিয়েছে৷

[৭] বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা জানান, বহিরাগত সন্ত্রাসীরা জাঙ্গাল কেন্দ্রটি দখলের চেষ্টা করছিল৷ এতে বাধা দিতে গেলে তারা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়ায়৷ পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে শতাধিক রাবার বুলেট ও শর্টগানেক গুলি ছোড়ে৷ ঘটনাস্থল থেকে ৫জনকে আটক করা হয়েছে৷ তিনি দাবী করেন, এ ঘটনায় তিনজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন৷ ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম পুলিশ সদস্যরা ঢাকায় চিকিৎসাধীন আছেন৷
ওদিকে বৃহস্পতিবার সকালে বিভিন্ন কেন্দ্রে বিভিন্ন প্রার্থীর পক্ষে তাদের লোকজন কেন্দ্রের ভেতর প্রভাব বিস্তার করে। এতে অনেক নিরিহ প্রার্থী অসহায় হয়ে পড়েছে। কারণ তাদের শক্তি হচ্ছে সাধারণ ভোটাররা। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) বেলা ১২টায় ৬৯নং পশ্চিম মাসদাইর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ওই ঘটনা ঘটে।

[৮] বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার এনায়েতনগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের নির্বাচনে একটি কেন্দ্র দখল করতে গিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হয় মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ ও তার সমর্থকদের।

[৯] তবে ভোক্তভোগী প্রার্থীদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা থাকলেও দুপুর ১টা পর্যন্ত বড় ধরনের কোন সংঘাতে বা অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি।

 

সর্বাধিক পঠিত