প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে লঙ্কা সফরে হাড়ে হাড়ে টের পেলেন রাহুল দ্রাবিড়

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রিকেটার অর্জুন রানাতুঙ্গা বলেছিলেন, সে দেশের সফরে দ্বিতীয় সারির দল পাঠাচ্ছে ভারত। তাই নিয়ে প্রচুর জলঘোলা হল। দ্বিতীয় সারির দলই পাঠিয়েছিল ভারত। প্রথম দল তো ইংল্যান্ডে। স্বাভাবিকভাবেই প্রথম দলের অনেকেই ছিলেন না একদিনের ও টি টোয়েন্টি দলে। ভারতের সুবিধা, এখন অনেক ক্রিকেটার জাতীয় দলের দরজায় কড়া নাড়ছেন, সবাইকে সুযোগ দেওয়াও সম্ভব নয়।

[৩] তাই লঙ্কায় এমন একটি দল পাঠাতে খুব একটা অসুবিধা হয়নি। সমস্যা হয়ে দাঁড়াল ক্রুনাল পান্ডিয়ার করোনা। যার ফলে আরও অনেক ক্রিকেটারকে কোয়ারান্টাইন-এ চলে যেতে হল। তাই শেষ দুটি ম্যাচে হার। ব্যাটসম্যান বলতে তো চারজনই ছিলেন মাত্র। সিরিজ হারতে যা অন্যতম কারণ।

[৪] সবাই এখন বলছেন, ভারতে বহু ক্রিকেটার এবং দুটি দল তৈরি করা যায়। ক্রিকেটার অনেকেই কিন্তু সত্যিকারের ভাল ক্রিকেটার যারা দীর্ঘদিন জাতীয় দলের হয়ে খেলবেন, এমনও কি অনেকেই? কারণ, এমন সিরিজে তাদের কাছে ছিল সত্যিকারের সুযোগ নিজেদের মেলে ধরার, প্রথম দলে সুযোগ পাওয়ার দাবি আরও জোরালো ভাবে পেশ করার। সে দিক দিয়ে কিন্তু ভারতের দ্বিতীয় সারির এই দল, অন্তত এবারের শ্রীলঙ্কা সফরে, ততটা নজর কাড়তে পারেনি যতটা প্রত্যাশিত।

[৫] কোচ হিসাবে রাহুল দ্রাবিড় আছেন মানেই সব জিতবে ভারত, এমন একটা ধারণা অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে তৈরির চেষ্টা হয়েছিল। রাহুল দ্রাবিড় মানেই যেন সেই ‘মিডাস টাচ’, তিনি ছোঁয়াবেন আর পাথরও সোনা হযে যাবে। দেখা গেল, সম্ভব নয়। আন্তর্জাতিক খেলার ক্ষেত্রে এটাই স্বাভাবিক। সব দলই জিতবে যেমন, হারবেও। বিরাট কোহলিরাও রবি শাস্ত্রীর কোচিং-এ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ জিতেছেন, কিছু আরও গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হেরেছেন। কোনও একজনের উপস্থিতি, তা-ও আবার কোচ হিসাবে মানেই সব জেতা সম্ভব নয় কখনও।[৬] এখন ক্রিকেট দুনিয়ায় বেশিরভাগ দলই মানের দিক থেকে বেশ কাছাকাছি। তাই কয়েকবার দেখা হলেই কোনও কোনও ম্যাচে এমনকি জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশও জিতে যায়। তথাকথিত বড় দলগুলোর শক্তি তো তুল্যমূল্য, জয়পরাজয়ের সংখ্যার বিচারে সেগুলো তো খুবই কাছাকাছি। তাই হারতে হবে, স্বাভাবিক। অযথা কাউকে কষ্টিপাথর করে ফেলাটা অপ্রয়োজনীয়। – আজকাল

 

সর্বাধিক পঠিত