প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কানাডা থেকে ফিরেই অরুণা বিশ্বাস অনুদান পাওয়া ‘অসম্ভব’ ছবির কাজ শুরু করবেন

ইমরুল শাহেদ: [২] সরকারি অনুদান যখন ঘোষণা করা হয়, তখন অরুণা বিশ্বাস রয়েছেন কানাডায়। তার প্রযোজনা, পরিচালনা ও চিত্রনাট্যে ‘অসম্ভব’ নামে একটি ছবি অনুদান পেয়েছে। এই নিয়ে তার মধ্যে যেমন একটা উচ্ছ্বাস রয়েছে তেমনি তৃপ্ত মনে হলো। কানাডা থেকে এ রিপোর্টারকে জানান, তিনি একমাস আগেই কানাডা গেছেন। ফিরবেন ঈদুল আযহার পর। রসিকতা করে বলেন, ‘আমারতো আর ভিসার দরকার হয় না। সময় পেলেই হুট করে গন্তব্যে চলে যেতে পারি।’ তিনি অনুদান পাওয়ার খবরটি সেখানে বসেই পেয়েছেন। এখন তারা দুই ভাইবোন অর্থাৎ ছোট ভাই মিঠুকে নিয়ে চিত্রনাট্য মাজা-ঘষার কাজ করছেন সেখানে বসেই। ছবিটি কাদের নিয়ে করবেন বা ছবিটিতে কারা কারা থাকবেন সে বিষয়ে এখনই তিনি কিছু ভাবেননি।

[৩] তিনি বলেন, ‘এই চিত্রনাট্যটি অনেকদিন আগের লেখা। এর মধ্যে মানুষের মন-মেজাজে পরিবর্তন এসেছে। সামাজিক স্তরে রুপান্তর হয়েছে। তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সংলাপগুলো কিছুটা বিন্যাস করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘আমি যেভাবে চিত্রনাট্য লিখেছি এবং যেভাবে অনুদান পেয়েছি, সেখান থেকে এক বিন্দুও সরব না। চিত্রনাট্যে কোনো পরিবর্তন আনা হবে না।’ তিনি বলেন, ‘এখন বুকিশ শব্দ ব্যবাহার করার সময় নেই। ওয়েব সিরিজ শুরু হয়ে গেছে দেশে। আমি একটি পূর্ণাঙ্গ ফিল্মই বানাবো, আগে যেভাবে হতো। আমার এটা একটি ফিল্মের গল্প। পরিবার, মুক্তিযুদ্ধ, দেশপ্রেম – এসব জিনিসগুলো আমার ছবিতে থাকবেই।’ অনুদান পাওয়া ‘অসম্ভব’ ছবিটিকে কেন্দ্র করেই এখন অরুণা বিশ্বাসের স্বপ্ন আবর্তিত হচ্ছে। তিনি সেন্সর বোর্ডের একজন সদস্যও।

[৪] পারিবারিকভাবেই তিনি এদেশের শিল্প-সংস্কৃতির সঙ্গে ওতপ্রোতপ্রোত জড়িত। যে যাত্রাশিল্প বাংলা সংস্কৃতির মেরুদণ্ড হিসেবে পরিচিত সেই পরিমণ্ডল থেকেই এসেছেন অরুণা। যাত্রানট অমলেন্দু বিশ্বাসের একমাত্র মেয়ে তিনি। তার অস্থিমজ্জাতেই আছে সংস্কৃতির ধারা। অনেকেরই প্রত্যাশা অরুণা বিশ্বাসের ছবিটি সুনির্মিত হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত