প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গুগল ম্যাপের ৫টি চমৎকার ব্যবহার !

সাজিয়া আক্তার: তথ্যপ্রযুক্তির জগতে জাদুময় মুগ্ধতা ছড়িয়ে চলা গুগলের অনন্য একটি ফিচার গুগল ম্যাপ। মাত্র ক’বছর আগেও অচেনা কোথাও যেতে হলে দশজনকে জিজ্ঞেস করে পথঘাট চিনে তারপর রওনা দিতে হতো। কিন্তু গুগল ম্যাপের কল্যাণে পৃথিবীর কোন প্রান্ত এখন আর অচেনা নেই ! যেখানেই যেতে চাও না কেন, ম্যাপে সার্চ করলেই সাথে সাথে বের করে দেবে পথ, কীভাবে যেতে হবে সবকিছু! বিশ্বজুড়ে গুগল ম্যাপ অসম্ভব জনপ্রিয় হলেও আমাদের দেশে এখনও অনেকেই এর সাথে অভ্যস্ত হয়ে উঠতে পারেনি।

জেনে নেওয়া যাক গুগল ম্যাপের ৫টি চমৎকার টিপস এবং ট্রিকস, যেন এখন থেকে ম্যাপ ব্যবহারে পারদর্শী হয়ে উঠতে পারো সহজেই।

১. ম্যাপেই জেনে নাও যানজটের হালচাল !

ম্যাপ দেখেই জেনে নেওয়া যায় কোন রাস্তায় জ্যাম আছে আর কোন রাস্তা ফাঁকা । তাতে অনেক সময় বেঁচে যায়। গুগল ম্যাপ নিয়ে এসেছে লাইভ ট্রাফিক আপডেট- এটি উন্নত বিশ্বে সেই ২০০৭ সাল থেকে চালু থাকলেও বাংলাদেশে চালু হয়েছে সম্প্রতি। এটি ব্যবহার করতে ম্যাপের মেনু থেকে ‘রিয়্যাল টাইম ট্রাফিক’-এ ক্লিক করে ‘ট্রাফিক’ অপশনে গিয়ে ‘লাইভ ট্রাফিক’ থেকে ‘টিপিক্যাল ট্রাফিক’ করে নাও। ট্রাফিক অপশনটি চালু হলে ম্যাপে রাস্তার ওপরে সবুজ, হলুদ, কমলা ও লাল রং দেখতে পাবে। সবুজ রঙ দেখা গেলে বুঝতে পারবে সে রাস্তায় এখন জ্যাম নেই। কমলা রঙ দেখা গেলে মাঝারি জ্যাম আর লাল রঙ থাকলে বুঝে নিতে হবে কঠিন যানজট।

গুগল সে খবর বের করতে “ক্রাউড সোর্সড ডাটা” ব্যবহার করে থাকে। অর্থাৎ রাস্তায় যত মানুষ যানবাহনে চলাচল করছে তাদের স্মার্টফোনে যদি লোকেশন সার্ভিস অন করা থাকে তাহলে গুগল সেগুলো থেকে ট্রাফিকের ডাটা সংগ্রহ করে ইন্ডিকেটর তৈরি করে।এর মাধ্যমে গুগল রাস্তায় থাকা গাড়ির সংখ্যা, কত দ্রুত গাড়িগুলো চলছে সেগুলো হিসেব করে জানিয়ে দেয় জ্যামের খবারখবর।

২. কম খরচে ম্যাপ ব্যবহার: Lite Mode

আমরা অনেকেই মোবাইল ডেটার সাহায্যে ইন্টারনেট ব্যবহার করি, তাই গুগল ম্যাপ কিছুটা ব্যয়বহুল মনে হতে পারে। এজন্যই গুগলের চমৎকার একটি ফিচার হচ্ছে ‘গুগল লাইট’ যেখানে ইন্টারনেট খরচ অনেক কম। এই লিঙ্কে ক্লিক করে যেতে পারো গুগল লাইট ম্যাপে, অথবা “Google map lite” লিখে গুগলে সার্চ করলেই পেয়ে যাবে।

https://www.google.com/maps/@24.8613815,89.3748456,15z?force=lite

এখানে স্ক্রিনের ডান পাশে নিচের একটি লাইটনিং বাটন নিশ্চিত করবে যে তুমি লাইট মোডে আছো। ফেসবুকের যেমন রয়েছে ফেসবুক লাইট, কিংবা অপেরা মিনি, ইউসি মিনি, সেরকম, গুগল ম্যাপেরও সহজ মাধ্যম হচ্ছে গুগল ম্যাপ লাইট। সুতরাং তুমি ওয়াইফাই অথবা মোবাইল ডেটা যেটাই ব্যবহার করো না কেন, ম্যাপ চালাতে আদৌ তেমন খরচ হবে না, কিন্তু আসল ম্যাপের সবগুলো সুবিধাই মোটামুটি উপভোগ করতে পারবে!

৩. ইন্টারনেট ছাড়াই যেভাবে চালাবে গুগল ম্যাপ

কোথাও বেড়াতে গেলে আগে থেকেই সেই এলাকার ম্যাপ ডাউনলোড করে রাখতে পারেন।

৪. যেকোন জায়গার দূরত্ব মাপার সুযোগ

কোনো জায়গার দূরত্ব জানতে চাইলে নিমেষেই বের করে ফেলতে পারো যেকোন দূরত্ব গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে। এজন্য প্রথমে যেখান থেকে দূরত্ব মাপতে চাও সেই লোকেশনে ড্রপ পিন দিয়ে হোল্ড করতে হবে। তারপর ড্রপ পিন এ চাপ দিলে কতগুলো অপশন আসবে, সেখান থেকে “Measure Distance” এ ক্লিক করলেই তুমি দূরত্ব মাপতে পারবে।

৬. কোথায় আছো প্রতিমুহূর্তে জানিয়ে দেওয়ার সুযোগ

গুগল ম্যাপের “Share your location in real time” নামের একটি ফিচার। এটি ব্যবহার করে তুমিও যাকে খুশি জানাতে পারবে তুমি এখন কোথায় আছো। সেজন্য মেনু থেকে Share Location এ ক্লিক করে ডিউরেশন সিলেক্ট করে গুগল কনট্যাক্ট থেকে যাকে যাকে জানাতে চাও সিলেক্ট করলেই তাদের সাথে লোকেশন শেয়ারিং শুরু করতে পারবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত