প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শ্রীলঙ্কায় ঢুকলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক, দুঃশ্চিন্তায় বিসিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : [২] করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মাঝেই সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে শ্রীলঙ্কার বিমান ধরার কথা ছিল জাতীয় দল এবং হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দলের। সপ্তাহখানেক আগেও নিশ্চিত ছিল ২১ সেপ্টেম্বর এই সফরকে সামনে রেখে ব্যক্তিগত অনুশীলন বাদ দিয়ে তামিম ইকবাল-মুশফিকুর রহিমদের দলগত অনুশীলনও শুরু হবে।

[৩] লম্বা সময় পর বাংলাদেশের ক্রিকেট মাঠে ফেরা নিয়ে যে অপেক্ষা ছিল, তাতে দেখা দিয়েছিল শঙ্কা। যদিও সেই শঙ্কা দূর করতে আসন্ন সফরের আনুষ্ঠানিক স্বাস্থ্য নীতিমালা বিসিবিকে পাঠিয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি)। তবে সেখানে এসএলসি শর্ত বেঁধে দিয়েছে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনের।

[৪] ১২ অক্টোবর কোয়ারেন্টিন শেষে পাঁচ দিনের দলগত অনুশীলন করবে বাংলাদেশ- এমনটাও চায় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট। এরপর ১৮ অক্টোবর থেকে চারদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে দুই দিনের বিশ্রামের পর ২৪ অক্টোবর টেস্ট সিরিজ শুরু করতে চায় তারা।
এসএলসি বিসিবিকে আপাতত এই শর্তই দিয়েছে। বিসিবির এক সুত্র জানিয়েছে এমনটাই। যদিও এই ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানায়নি বিসিবি।

[৫] সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। বৈঠক শেষে আজই এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

[৬] এসব ছাড়াও টাইগার বহরে সদস্য সংখ্যা কমিয়ে আনতে চায় শ্রীলঙ্কা। জাতীয় দল ও এইচপি দল মিলিয়ে সর্বমোট ৬৫ জনের বহর লঙ্কান বিমানে চড়ার কথা থাকলেও লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড সেটি বাতিল করে দিয়েছে। তারা জানিয়েছে, শুধু জাতীয় দলের সঙ্গে কর্মকর্তাসহ সর্বোচ্চ ৩০ সদস্য সফর করতে পারবেন শ্রীলঙ্কায়। শেষ পর্যন্ত এই নীতিমালা মানতে হলে এইচপিকে ছাড়াই যেতে হতে পারে জাতীয় দলকে।

[৭] মূলত প্রস্তুতির লক্ষ্যেই একমাস আগে শ্রীলঙ্কায় যেতে চেয়েছিল জাতীয় দল ও এইচপি ইউনিট। যেখানে একসাথে অনুশীলনের পাশাপাশি নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলার কথা ছিল। এই সফরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনটি টেস্ট খেলার কথা বাংলাদেশের। প্রথম দুটি টেস্ট ক্যান্ডিতে এবং শেষ টেস্ট কলম্বোতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। যদিও শ্রীলঙ্কা এখনও সিরিজের চূড়ান্ত সূচি ঘোষণা করেনি। – ক্রিকফ্রেঞ্জি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত