প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঢাবির অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের পরিবারের পাশে দাঁড়ালো ‘মিশন ডিইউ ফ্যামিলি’

ওবায়দুর রহমান সোহান, ঢাবি প্রতিনিধি : [২] ‘মিশন ডিইউ ফ্যামিলি’ (Mission DU Family) নামে স্বেচ্ছাসেবী প্লাটফর্ম গঠন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের পরিবারের পাশে দাড়িয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু’র চার নির্বাচিত প্রতিনিধি।

[৩] ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু’র স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরী এবং সদস্য রফিকুল ইসলাম সবুজের উদ্যোগে তৈরীকৃত এই স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্মটির সাথে পরবর্তীতে যুক্ত হন ডাকসু’র সংস্কৃতি সম্পাদক আসিফ তালুকদার এবং সদস্য নজরুল ইসলাম।

[৪] ইতোমধ্যে, ডিইউ মিশন ফ্যামিলি সংগ্রহীত প্রায় আড়াই লক্ষ পরিমাণ টাকা শিক্ষার্থিদের মধ্যে বিতরণ করেছেন৷ তাদের মধ্যে, ৭৫ জন শিক্ষার্থীকে ২ হাজার টাকা, ৪২ জনকে ১২০০ টাকা, ৫ জনকে ১ হাজর করে মোটা দু’লক্ষ পাঁচ হাজার চারশত টাকা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ৩৫ জন শিক্ষার্থীর বাড়িতে ১২-১৫ দিনের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ও খাদ্য উপকরণ উপহার হিসেবে পাঠানো হয়েছে।

[৫] এর আগে, বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদেরকে অনলাইনে ফর্ম পূরণের মাধ্যমে আবেদন করার জন্য আহ্বান জানান তারা। এতে প্রায় ৩ শত শিক্ষার্থী সাহায্য গ্রহনের জন্য আবেদন করেন। এই শিক্ষার্থীদের তালিকা তৈরী করে পর্যায়ক্রমে অর্থ এবং খাদ্য সামগ্রী শিক্ষার্থীদের বাড়িতে পৌছে দিচ্ছেন তারা।

[৬] এই কার্যক্রম প্রসঙ্গে ডিইউ মিশন ফ্যামিলিরর উদ্যোক্তা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু’র স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরী বলেন, আমরা প্রায় ৩০০ এর মতো আবেদন পেয়েছিলাম। ইতিমধ্যে প্রায় ২০০জনকে সহায়তা করতে পেরেছি। এই ধারা চলমান থাকবে। সামনে রমজানেও যাতে তাদের কিছু হলেও সহায়তা করতে পারি সেই চেষ্টা থাকবে। কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যদি যুক্ত হতে চান আমাদের এই উদ্যোগে তবে তাদের স্বাগতম। আমাদের কাছে তালিকা আছে। তারা তাদের মতো সহায়তা করতে পারেন। এই দুর্যোগে সকলের পাশে দাঁড়ানোই আমাদের উদ্দেশ্য।

[৭] ডিইউ মিশন ফ্যামিলিরর আরেকজন উদ্যোক্তা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু’র সদস্য রফিকুল ইসলাম সবুজ বলেন, আমরা মনে করি এই মহামারীর সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশে থাকা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। সে লক্ষ্যেই আমরা কাজ করছি এবং এটি চলমান থাকবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত