প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতের পশ্চিমবাংলায় ডাক্তারদের প্রতিবাদ কর্মসূচিতে চরম দুর্ভোগে রোগীরা

রাশিদ রিয়াজ : ভারতের পশ্চিমবাংলায় চিকিৎসক-নিগ্রহের প্রতিবাদে শহরের হাসপাতালগুলিতে ডাক্তারদের কর্মবিরতি চলছে। কলকাতার হাসপাতালে একজন জুনিয়র ডাক্তারের ওপর হামলার জেরে ফুঁসে উঠেছে কলকাতা ও সারা পশ্চিমবাংলা। এরফলে চিকিৎসা পরিষেবা ধাক্কা খাচ্ছে মারাত্মক ভাবে। কর্মসূচিতে শুধু বহির্বিভাগে পরিষেবা বন্ধের কথা বলা হলেও এনআরএস-এ হাসপাতালে ইন্ডোরে, এমনকি জরুরি বিভাগেও কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। এনআরএস হাসপাতালে ডাক্তার-নিগ্রহের ঘটনায় বুধবার এনআরএস ও এসএসকেএম, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালগুলিতে বহির্বিভাগের পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। যার জেরে চরম হয়রানির শিকার সাধারণ মানুষ। বেনজির পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে এই হাসপাতালগুলিতে। এই সময়

বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসকের খোঁজে দিশাহারা হয়ে ছোটাছুটি করতে দেখা গিয়েছে আত্মীয়দের। গুরুতর অসুস্থ বা আহতকে পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে না জরুরি বিভাগে। বহির্বিভাগে পরিষেবা না-মেলায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীদের আত্মীয়েরা।

এসএসকেএম হাসপাতালে পুলিশকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন রোগীর আত্মীয়রা। আবার মরণাপন্ন রোগীকে অ্যাম্বুল্যান্সে তুলে অন্যত্র ছুটতে বাধ্য হয়েছেন রোগীর পরিজনরা।

বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ , রাজনীতিক, লেখক, কবি, সংস্কৃতি কর্মী সবাই এখন ডাক্তারদের পাশে। নিন্দা করছেন সকলে। ডাক্তারদের মহান ভুমিকা তারা স্মরণ করছেন। কোন রকম ট্রলিং হচ্ছে না। কেউ কসাই বলছে না। বরং ডাক্তারদের ওপর হামলার কঠিন দাবিতে সোচ্চার কলকাতাবাসী। কবি সমরজিৎ সিনহা বলেন, চিকিৎসক আমার কাছে ইশ্বর। ইশ্বরের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা করছি।

শেষাদ্রি বসু জানান, এন আর এসে রোগী মৃত্যু কে কেন্দ্র করে ২০০ জনের উন্মত্ত আক্রমনের দাম দিল সে, তার মাথার খুলির ছবিও দেখলাম। বীভৎস। তার বাবা, মায়ের মানসিক অবস্থা বুঝতে পারছি।সুস্থ হয়ে উঠুক সে। জুনিয়ার ডাক্তারদের ক্রোধ সংগত, কিন্তু জরুরি বিভাগ স্তব্ধ করে দিয়ে অগনিত নিরাপরাধ রোগীদের বিপদে ফেলার প্রতিবাদও সংগত না। মঙ্গলবার রাজ্যে আউটডোর পরিষেবা বন্ধ।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত