শিরোনাম
◈ এ সংঘর্ষ কোনভাবেই কাম্য নয়, দোষীদের বিচারের দাবি করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলীয় নেতা-কর্মী ও বিত্তবানদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ◈ ৬ দিন বন্ধের পর ফের চালু ইন্টারনেট ◈ বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মীর নাশকতার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার তথ্য মিলেছে: ডিবির হারুন ◈ চার জেলায় কারফিউ চলবে, অন্যগুলোর সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসনের ◈ চট্টগ্রাম এবং বরিশালে স্বল্প পরিসরে যাত্রীবাহী বাস চলাচল শুরু ◈ অফিস খোলা থাকবে আগামীকাল বুধবার ও বৃহস্পতিবার, কারফিউর মেয়াদ বাড়লো ◈ অগ্রাধিকারভিত্তিতে বাছাইকৃত এলাকায় চালু করা হবে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট : জুনাইদ আহমেদ পলক ◈ নরসিংদীতে জেল পালানো কয়েদি আত্মসমর্পণের জন্য জড়ো হয়েছেন প্রায় একশোর মত ◈ আপিল বিভাগের রায় অনুযায়ী কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার

প্রকাশিত : ১০ জুলাই, ২০২৪, ০৩:০৬ দুপুর
আপডেট : ১১ জুলাই, ২০২৪, ১০:৪৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আন্দোলন করার এখন কোনও যৌক্তিক কারণ নাই: অ্যাটর্নি জেনারেল  

ইকবাল খান: [২] সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায়ের উপর আপিল বিভাগের স্থিতাবস্থার পর এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন।

[৩] বিবিসি বাংলা আরও জানিয়েছে, অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, আপিল বিভাগ স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে বলেছেন। অর্থাৎ, যেমন আছে, তেমন থাকবে। কোটা বাতিল-সংক্রান্ত ২০১৮ সালের পরিপত্রের ভিত্তিতে যে সব সার্কুলার দেওয়া হয়েছে সেখানে কোটা থাকছে না।

[৪] অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, যারা আন্দোলন করছেন, তাদেরকে আমি অনুরোধ করবো যে যেহেতু সুপ্রিম কোর্ট এটা বিবেচনায় নিয়েছেন এবং সুপ্রিম কোর্ট একটা কথা বলছেন, অতএব এখন (আন্দোলন করার) তাদের কোনও যৌক্তিক কারণ নাই। এটি বন্ধ করে তাদের ফিরে যাওয়া উচিৎ।

[৫] তিনি বলেন, ‘সামনে জুডিশিয়াল সার্ভিসের, পিএসসি’র কয়েকটি পরীক্ষা আছে। সেগুলোর প্রজ্ঞাপনে কোটার কথা কোথাও বলা নাই। সেক্ষেত্রে কোটা সিস্টেম যদি স্থগিত না করা হয়, সেক্ষেত্রে এই পরীক্ষাগুলো নেওয়া এবং চাকরি দেওয়া সম্ভব হবে না। মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে কেউ এখানে দরখাস্ত করেনি। আর কোটা দেওয়ারও কথা ছিলো না। সেক্ষেত্রে আরও জটিলতা সৃষ্টি হবে।

[৬] অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন আরও বলেচেন, ‘কোটা রাখা-না রাখা সরকারের পলিসি ডিসিশন। সেক্ষেত্রে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না।’ 

[৭] অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘কোনোভাবেই আন্দোলন করে রায় পরিবর্তন করতে পারে না। রায় পরিবর্তনের একটা পদ্ধতি আছে। কেউ যদি মনে করে যে এই রায়টি সঠিক হয়নি, সে তখন উচ্চতর আদালতে আসতে পারে।’।

আইকে/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়