শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১০:২১ দুপুর
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৬:০৫ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ঢাকায় চারদিনব্যাপী কোরআন বিষয়ক ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনী চলছে

রাশিদুল ইসলাম: বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে শনিবারা থেকে ‘কোরআনের দিনগুলো’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও চারদিনব্যাপী কোরআন বিষয়ক ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনী শুরু হয়েছে।পবিত্র কোরআন বিষয়ক এ ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. বশিরুল আলম। ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে অবস্থিত ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান দূতাবাসের কনস্যুলার  ( ইকনোমিক এ্যাফেয়ার্স ) মাহমূদ খোসরাভী এবং বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কারী শায়খ আহমাদ বিন ইউসুফ আল আযহারী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কালচারাল কাউন্সেলর  সাইয়্যেদ রেজা মীর মোহাম্মদী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. বশিরুল আলম বলেন, ইরান একটি প্রাচীন সভ্যতার দেশ।ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে দেশটি অত্যন্ত সমৃদ্ধ।সারাবিশ্বে ইসলামের প্রচার প্রসারে দেশটির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সম্প্রতি ইরানে  অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় দুজন বাংলাদেশি প্রথম ও তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে৷ তাদের জন্য আমরা বাংলাদেশের মানুষ গর্ববোধ করি৷ তিনি বলেন, ইরানের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। আমরা আশা করি ভ্রাতৃপ্রতিম দেশ হিসেবে আগামীতে ইরানের সাথে বাংলাদেশের ধর্মীয় ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরো জোরদার হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কালচারাল কাউন্সেলর  সাইয়্যেদ রেজা মীর মোহাম্মদী বলেন, পবিত্র কোরআন এসেছে মানুষকে হেদায়েতের জন্য।আল্লাহর বান্দা হিসাবে আমাদের দায়িত্ব হল দুনিয়ায় পবিত্র কোরআন চর্চা করা। আমরা মুসলমান হিসেবে এবং আল্লাহর বান্দা হিসেবে আমাদের প্রত্যেকের উপর দায়িত্ব হচ্ছে কোরআনের সাথে পরিচিত হওয়া। পবিত্র কোরআনেই বলা হয়েছে, যে এই আসামী কিতাব হলো মানুষের জন্য পথ নির্দেশিকা স্বরূপ। এটি মানুষকে উত্তম পথের দিকে ধাবিত করে। যা কিছু  সুন্দর-উত্তম সেদিকেই মানুষকে পথ দেখায়। এক কথায় বলতে গেলে কোরআন এসেছে মানুষকে সঠিক পথে পরিচালিত করার জন্য। তাই উত্তম জীবন যাপনের জন্য আমাদের পবিত্র কুরআনকে অনুসরণ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশে অবস্থিত ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান দূতাবাসের কনস্যুলার  ( ইকনোমিক এ্যাফেয়ার্স ) মাহমূদ খোসরাভী এবং বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কারী শায়খ আহমাদ বিন ইউসুফ আল আযহারী। আলোচনাসভা শেষে  চারদিনব্যাপী কোরআন বিষয়ক এই ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. বশিরুল আলম।

এই ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনী চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে ২৬ ফেব্রুয়ারি ওয়ার্কশপ ও প্রদর্শনী  বন্ধ থাকবে। ইরানের বিখ্যাত কারী ও কোরআনের শিল্পীরা এই প্রদর্শনী ও ওয়ার্কশপ পরিচালনা করবেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়