শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৬ মে, ২০২২, ০৮:৩৭ রাত
আপডেট : ২৭ মে, ২০২২, ০৫:১৭ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

নওগাঁয় শুরু হয়েছে আম নামানোর উৎসব

 নওগাঁ প্রতিনিধি :  [২] আমের নতুন রাজধানী খ্যাত উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা নওগাঁয় চলতি মৌসুমে গুটিজাতের আম নামানো শুরুর মধ্য দিয়ে আম পাড়ার (ক্রয়-বিক্রয়) উৎসব শুরু হয়েছে। 

[৩] বাজারে নিরাপদ ও পরিপক্ব আম নিশ্চিতে আগে থেকেই সময়সূচী নির্ধারণ করে রেখেছিলো নওগাঁ জেলা প্রশাসন ও জেলা কৃষি বিভাগ। এর ধারাবাহিকতায় বুধবার (২৫মে) থেকে গুটি জাতের আম নামানো মধ্যে দিয়ে জেলায় শুরু হয়েছে আম পাড়া উৎসব। নির্ধারিত সময়ের আগেই যদি কোনো বাগানে আম পেকে যায় তাহলে চাষি তা পাড়তে পারবেন। সেক্ষেত্রে বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানাতে হবে।

[৪] জেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সভায় জাতভেদে আম নামানোর সম্ভাব্য তারিখ জানানো হয়। সভায় কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা ছাড়াও আমচাষি, ব্যবসায়ী ও সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। ওই সভায় কৃষি বিভাগ, চাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা করে এ বছর গুটি জাতের আম নামানোর তারিখ ঠিক করা হয় ২৫ মে। এছাড়া গোপালভোগ ৩০ মে ও ক্ষীরশাপাত বা হিমসাগর ৫ জুন, নাগ ফজলি ৮ জুন, ল্যাংড়া ও হাঁড়িভাঙ্গা ১২ জুন, ফজলি আম ২২ জুন ও আম্রপালি ২৫ জুন থেকে নামানো যাবে। সর্বশেষ ১০ জুলাই থেকে নামানো যাবে আশ্বিনা, বারী-৪ ও গৌরমতি জাতের আম।
 
[৫] জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ শামছুল ওয়াদুদ বলেন, বাগান মালিক,ব্যবসায়ী, জেলা প্রশসন সবার সাথে আলোচনা করে আম সংগ্রহের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়। তারিখ অনুযায়ী আম সংগ্রহ করার জন্য জেলাজুড়ে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। পরিপক্ব ও ক্ষতিকারক কেমিক্যাল উপাদানমুক্ত আম খাওয়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
 
[৬] বিষয়টি নিয়ে কথা হলে জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান বলেন, বুধবার থেকে চাষীরা গাছ থেকে গুটি আম নামতে পারবেন। উন্নত জাতের আমগুলো নামানোর জন্য আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। তবে আবহাওয়ার তারতম্যের কারনে নির্ধারিত সময়ের আগেই যদি কোনো বাগানে আম পেকে যায় স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনকে জানিয়ে চাষিরা আম পাড়তে পারবেন।
 
[৭] তিনি আরও বলেন, সারা দেশে নওগাঁর আমের খুব সুনাম রয়েছে। এই জন্য গত কয়েক বছর থেকে আম পাড়ার তারিখ নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এছাড়াও আম পাকানো, সংরক্ষণ বা বাজারজাতে কোন কেমিক্যালের ব্যবহার ঠেকাতে আম নামানোর সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। বিষয়টি প্রশাসন কঠোরভাবে নজরদারিতে রাখবে। নির্ধারিত সময়ের আগে কেউ অপরিপক্ব আম নামালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[৮] জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে,  চলতি মৌসুমে জেলায় ২৯ হাজার ৪৭৫ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে। হেক্টরপ্রতি ফলন ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ৫০ টন। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৩৫ টন আম।

[৯] যার বিক্রয় মূল্য ধরা হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৮৪২ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এর মধ্যে বিদেশে আম রপ্তানির জন্য কয়েকজন আম চাষিকে প্রশিক্ষণ ও নিরাপদ আম প্রস্তুতের পরামর্শ দেয়া হয়েছে কৃষি বিভাগ থেকে। তাদের বাগান থেকেই আম ইংল্যান্ড, জার্মানি, ইতালি, ফ্রান্স, ডেনমার্ক, দুবাই, কাতার, সুইডেন ও ওমানে রপ্তানি করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়