শিরোনাম
◈ ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞে চুপ থেকে বিএনপি-জামায়াত গাজায় গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘেরও ১৫ বছর আগে শিশু আইন প্রণয়ন করেন: আইনমন্ত্রী  ◈ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচের সময় চূড়ান্ত করলো বিসিবি ◈ সাবেক স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক লতা মারা গেছেন ◈ সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষধ-পত্র ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ বিদ্যুতের দাম বাড়ছে ৮.৫০ শতাংশ, ফেব্রুয়ারিতেই কার্যকর ◈ ২ দিনের রিমান্ড শেষে ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ কারাগারে ◈ বর্তমানে মত প্রকাশের স্বাধীনতার ছিটেফোটাও নেই: রিজভী ◈ রমজানে আল-আকসা খোলা রাখতে ইসরায়েলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বান ◈ ৪২৪ কোটি টাকার তেল-ডাল-গম কিনছে সরকার

প্রকাশিত : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৭:১৫ বিকাল
আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৭:১৯ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

স্কুলছাত্রীকে অপহরণের দায়ে যুবকের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর: [২] ফরিদপুরে দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে (১৫) অপহরণের দায়ে লিটন ওরফে রমজান মিয়া (৩১) নামে এক ব্যক্তিকে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

[৩] সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে ফরিদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেন।

[৪] আসামি রমজান রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার সাংগুড়া এলাকার বাসিন্দা। রায় প্রদানের পর তাকে পুলিশ প্রহরায় জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

[৫] মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের শুরু থেকেই রমজান ফরিদপুরের মধুখালীর গাজনা ইউনিয়নের একটি গ্রামের দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না পেয়ে একই বছর (২০১৮) ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৯ টার দিকে তার কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে করে ওই কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর ওই কিশোরীকে রমজান তার এক আত্মীয়র বাড়ি নিয়ে গিয়ে বিয়ে করতে চায়। কিন্তু রমজানের সেই আত্মীয় ওই কিশোরীকে বাড়ি ফিরিয়ে দিতে বলে। পরে রমজান ওইদিনই কিশোরীটিকে মধুখালী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছে রেখে চলে যায়।

[৬] পরে ওই কিশোরী বাড়িতে গিয়ে সব ঘটনা পরিবারের লোকজনকে খুলে বলার পর তার বাবা (৫০) বাদী হয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর রমজানসহ তার সহযোগী সুজন সিকদার, জাকির মিয়া, মকিদুল মিয়া ও আসান মিয়ঢাকে আসামি করে  নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মধুখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

[৭] মামলাটি তদন্ত করে মধুখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এস এম রিয়াদুজ্জামান ২০১৯ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি লিটন ওরফে রমাজন, সুমন শিকদার (৩১) ও জাকির মিয়াকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

[৮] নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁশলী (পিপি) স্বপন কুমার পাল জানান, ২০০০ সালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এর ৭ ধারায় এ রায় প্রদান করা হয়েছে। এই মামলার অন্য দুই আসামি সুমন শিকদার ও জাকির মিয়ার অপরাধ সন্তেহাতীত ভাবে প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

[৯] তিনি বলেন, এই রায়ের ফলে সমাজে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে এবং দেশে আইনের শাসনের পথ সুগম হবে।

প্রতিনিধি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়