শিরোনাম

প্রকাশিত : ০২ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৯:০৫ রাত
আপডেট : ০২ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৯:০৫ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মোহনগঞ্জে সঠিক সময়ে স্কুল না খোলায় শিক্ষকদেরকে শোকজ

বিদ্যালয়

রিংকু রায়, নেত্রকোণা (মোহনগঞ্জ): নেত্রকোণার মোহনগঞ্জ উপজেলার পশুখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি সঠিক সময়ে খোলা না হওয়ায় প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল্লাহ সহ সহকারি শিক্ষকদেরকে শোকজ করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ সাহা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার সকাল ১০টা পর্যন্ত পশুখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি খোলা হয়নি। বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকদেরকেও আশপাশে দেখা যায়নি।


তবে ৬/৭ জন শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ের গেইটের সামনে বসে থাকতে দেখা যায়। এ ঘটনাটি ফেসবুক লাইভে তুলে ধরেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। বিষয়টি জেলা-উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নজরে আসে। বিষয়টি আমলে নিয়ে বিদ্যালয় পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ার পর ভারপ্রাপ্ত উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ সাহা ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক সহ সহকারি শিক্ষকদেরকে শোকজ করেন। শোকজ পত্রে তিন কার্য দিবসের মধ্যে তাদেরকে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মোহনগঞ্জ উপজেলার পশুখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকসহ পাঁচজন শিক্ষক রয়েছে। শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ২শ জনের মতো।

পশুখালী গ্রামের বেক্সিনে কবির ও মশিউর রহমান বলেন, এই বিদ্যালয়টি কোনদিনই সঠিক সময়ে খোলা হয়নি। সবসময় সকাল ১০টার পর খোলেন শিক্ষকরা। এদিকে শিক্ষার্থীরা এসে নয়টা থেকেই গেটের সামনে বসে থাকে। শিক্ষকরা তাদের মনমতো বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করেন।

এ বিষয়ে পশুখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল্লাহ জানান, রাস্তাঘাট ভাঙ্গা থাকায় বুধবার বিদ্যালয় পৌঁছতে দেরি হয়ে গেছে। অন্যদিন সঠিক সময়েই বিদ্যালয় খোলা হয়।

ভারপ্রাপ্ত উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ সাহা বলেন, ঘটনার সত্যতা পেয়ে ওইদিনই শিক্ষকদের শোকজ করা হয়েছে। শোকজের কপি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবরও পাঠিয়ে দিয়েছি। অনিয়ম করলে আমি কখনো ছাড় দেই না। প্রাথমিক শিক্ষা হলো শিক্ষার মূল ভিত্তি। এভাবে স্কুল ফাঁকি দিলে শিক্ষার্থীরা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে। এমন অনিয়ম সহ্য করা হবে না। 

প্রতিনিধি/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়