প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় নাট্যজন মৃণাল কান্তি দত্তের মৃত্যু, রাষ্ট্রপতির শোক

মনোয়ার হোসাইন: [২] করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠশিল্পী, কৃতী নাট্যশিল্পী ও নাট্য নির্দেশক বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃণাল কান্তি দত্ত (৭৭)। শুক্রবার (১৬ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন ধরে সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

[৩] তাঁর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, কিশোরগঞ্জের স্থানীয় সাংস্কৃতিক অঙ্গনে প্রয়াত মৃণাল কান্তি দত্তের অবদান জনগণ আজীবন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। রাষ্ট্রপতি প্রয়াত মৃণাল কান্তি দত্তের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন ও তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

[৪] মৃণাল কান্তি দত্ত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সহপাঠী ছিলেন। তিনি ১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি জেলার কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের নাগেরগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।বরেণ্য এই নাট্যশিল্পী ধনাঢ্য পরিবারের সন্তান হয়েও বিলাসী জীবন পরিহার করে সাদামাটা সাংস্কৃতিক জীবন বেছে নেন। কৈশোর-উত্তীর্ণ বয়স থেকেই তিনি কিশোরগঞ্জ শহরে বসবাস করে আসছিলেন।

[৫] বনগ্রাম ইউনিয়নের তিনি দুইবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান তিনি। এছাড়া জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, শ্রী শ্রী কালীবাড়ি ও কটিয়াদী সমিতির সভাপতিসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় সংগঠনে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।

[৬] জেলা শহরের নীলগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা মৃণাল কান্তি দত্ত শহরের স্টেশন রোডের দত্ত স্টুডিও’র স্বত্বাধিকারী ছিলেন।নাটকের বাইরে সেই ষাটের দশকে সঙ্গীত রচনা, সুরারোপ ও সঙ্গীত পরিবেশনায়ও তিনি খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় আগরতলার বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে ও মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে তিনি নিজের লেখা গান পরিবেশন করে স্বাদেশিক চেতনা উজ্জীবিত করেছিলেন। সে সময় তিনি আগরতলায় গঠিত বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক সংস্থার সাথেও নিবিড়ভাবে সম্পৃক্ত হন।

[৭] মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে, দুই মেয়ে, আত্মীয়-স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।শনিবার (১৭ জুলাই) সকাল ৭টায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গাইটাল শ্মশানে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে।

[৮] এ সময় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বড় ছেলে কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মো. আসাদ উল্লাহ, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উবায়দুর রহমান সাহেল, কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিক পিপিএম এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রয়াতের স্বজনেরা উপস্থিত ছিলেন।

[৯] স্বাধীনতা-উত্তর সময়ে মৃণাল কান্তি দত্ত পুরো মাত্রায় নাট্য আন্দোলনে যুক্ত হন। অভিনয় ও নির্দেশনার পাশাপাশি নতুন নাট্যশিল্পী সৃষ্টির জন্য তিনি উদয়াস্ত শ্রম বিনিয়োগ করেছেন।

[১০] একজন ক্রীড়া সংগঠক হিসেবেও তিনি কিশোরগঞ্জের ক্রীড়াঙ্গণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।নাট্যশিল্পে বিশেষ অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসেবে ২০১৫-২০১৬ সালে এই কৃতী নাট্যশিল্পী ও নাট্য নির্দেশককে নাট্যকলা ক্যাটাগরিতে ‘জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা’য় ভূষিত করা হয়।

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত