প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নবাবগঞ্জ থানায় আসামির মৃত্যু : পুলিশের দাবি আত্মহত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকার নবাবগঞ্জ থানায় পুলিশ হেফাজতে মামুন নামে এক হত্যা মামলার আসামির মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের দাবি, থানার টয়লেটের গ্রিলের সাথে নিজ লুঙ্গি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে মামুন।

পুলিশ জানিয়েছে, গেল রোববার সকালে নবাবগঞ্জের দেওতলার খ্রিস্টান পল্লীর বাঁশ বাগান থেকে অজ্ঞাত এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে, সেই নারীর পরিচয় পাওয়া যায়। সে মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার লস্করপুর গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা। একই এলাকার অটোরিকশা চালক মামুন মিয়া রাজিয়াকে হত্যা করে মরদেহ গুম করতে নবাবগঞ্জে ফেলে আসে।

সোমবার ওই নারীর স্বজন ও এলাকাবাসী বিষয়টি টের পেয়ে মামুনকে আটক করে শ্রীনগর থানায় সোপর্দ করে। মঙ্গলবার সকালে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে আসামিকে হস্তান্তর করা হয়। দুপুরে পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রাথমিকভাবে হত্যার কথা স্বীকার করে মামুন। এরপর তাকে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি নেয়া হয়। তার আগেই আসামি মামুন তার নিজ লুঙ্গি দিয়ে হাজতের ভেতর টয়লেটের জানালায় সাথে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এই বিষয়ে নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ সিরাজুল ইসলাম জানান, মামুনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র : বৈশাখি অনলাইন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত