প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘ক্ষমতা না ছাড়লে সামরিক বাহিনী ট্রাম্পকে সরিয়ে দেবে’

ডেস্ক রিপোর্ট: মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হেরে গেলেও নিয়মতান্ত্রিক উপায়েই ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিজ দলের প্রভাবশালী রিপাবলিকান নেতারা। ঠিক এর আগের দিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজিত হলে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিতে অস্বীকৃতি জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের নেতা মিচ ম্যাককনেল জানান, আগামী ৩ নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে যেই জিতুক না কেন, আগামী বছরের ২০ জানুয়ারিতে তার অভিষেক শান্তিপূর্ণভাবেই অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে মার্কিন নির্বাচনী পর্যবেক্ষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে গণতন্ত্রের মূলভিত্তি হচ্ছে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর। ট্রাম্প তা না করলে, সাংবিধানিকভাবে বিপদে পড়ে যেতে পারে আমেরিকা।

এর আগে রিপাবলিকান সিনেটর মিট রমনিও জানান, ’শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তর গণতন্ত্রের মূল ভিত্তি। এর অন্যথা হলে দেশের অবস্থা হবে বেলারুশের মতো। একজন প্রেসিডেন্ট এই সাংবিধানিক প্রতিশ্রুতিকে সম্মান দেখাবেন না, এমন কোনও ধরনের ইঙ্গিত অকল্পনীয় এবং তা মেনে নেয়া যায় না’।

ট্রাম্পঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত লিন্ডসে গ্রাহাম নিরাপদ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অবশ্য নির্বাচনে কোনো ধরনের গণ্ডগোল হলে সিদ্ধান্তের জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হওয়া লাগতে পারে বলেও অনুমান এ রিপাবলিকান সিনেটরের।

ট্রাম্পের ক্ষমতা না ছাড়ার বক্তব্যে নিন্দা জানিয়ে নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, ‘এটা উত্তর কোরিয়া বা রাশিয়া নয় যে আপনি ক্ষমতা ছাড়বেন না’। সংবিধানিক মোতাবেক শান্তিপূর্ণ উপায়েই ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে, বলেন পেলোসি।

আর, ক্ষমতা না ছাড়লে সামরিক বাহিনী ট্রাম্পকে হোয়াইট হাউস থেকে সরিয়ে দিতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে মার্কিন রাজনীতি। প্রতিদিনই কোন না কোন বেফাঁস মন্তব্য করে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

সর্বাধিক পঠিত