প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথমার্ধে মুনাফায় পিছিয়েছে তালিকাভুক্ত ৫৭% ব্যাংক

ডেস্ক রিপোর্ট : আর্থিক বছরের প্রথমার্ধে কমে গেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত অধিকাংশ ব্যাংকের মুনাফা। ব্যাংকগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এই সময়ে মুনাফা কমেছে প্রায় ৫৭ শতাংশ ব্যাংক কোম্পানির। করোনাভাইরাসের কারণে এমনটি হয়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। তবে মুনাফা কমলেও বর্তমানে ব্যাংক শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের বেশ চাহিদা লক্ষ করা যাচ্ছে। শেয়ার বিজ

প্রাপ্ত তথ্যমতে, গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২০২০ সালের প্রথমার্ধে ৩০ কোম্পানির মধ্যে ১৭ বা ৫৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ ব্যাংকের মুনাফা কমেছে। একই সময়ে ১২টি বা ৪০ শতাংশ ব্যাংকের নিট মুনাফা বেড়েছে। বাকি একটি ব্যাংকের বেড়েছে লোকসান।

তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ৩১২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা মুনাফা হয়েছে ইসলামী ব্যাংকের, যদিও এই মুনাফা গত বছর প্রথমার্ধের চেয়ে কম। গতবছর একই সময়ে ব্যাংকটির মুনাফা ছিল ৩৩০ কোটি পাঁচ লাখ টাকা। এরপর ২১৬ কোটি ৪১ লাখ টাকা নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠেছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক। গত বছরের চেয়ে এ বছর ব্যাংটির মুনাফা বাড়তে দেখা গেছে। ২০১৯ সালে একই সময়ে তালিকাভুক্ত এই ব্যাংকের মুনাফা ছিল ১৯১ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা সাউথইস্ট ব্যাংকের নিট মুনাফা হয়েছে ১৮৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। আগের বছর একই সময়ে ব্যাংকটির মুনাফা ছিল ২৬০ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। পরের অবস্থানে থাকা ব্যাংক এশিয়ার মুনাফা আগের চেয়ে বেড়েছে। চলতি বছরের প্রথমার্ধে এই ব্যাংকটির মুনাফা হয়েছে ১৬০ কোটি ২৪ লাখ টাকা। গত বছর একই সময়ে মুনাফা হয়েছিল ১২৩ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। প্রথমার্ধে ইস্টার্ন ব্যাংকের মুনাফাও কমতে দেখা গেছে। এ বছর ব্যাংকটির মুনাফা হয়েছে ১৫৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা, আগের বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১৫৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

এই ব্যাংকটি ছাড়াও প্রথমার্ধে কমেছে পূবালী ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, শাহজালাল ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ইউসিবিএল, আইএফআইসি, উত্তরা, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, এবং স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের মুনাফা।

অন্যদিকে চলতি বছরের প্রথমার্ধে একমাত্র আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক লোকসান করে সবার তলানিতে রয়েছে। ব্যাংকটির ২১ কোটি সাত লাখ টাকা লোকসান হয়েছে।

ব্যাংকগুলোর চলতি বছরের প্রথমার্ধে তিন হাজার ১৫৫ কোটি ১৯ লাখ টাকা নিট মুনাফা হয়েছে, যার পরিমাণ ২০১৯ সালের প্রথমার্ধে ছিল তিন হাজার ৫৩৮ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

বিষয়টি নিয়ে আলাপ করলে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্ট ড. মির্জ্জা এবি আজিজুল ইসলাম শেয়ার বিজকে বলেন, ব্যাংকের মুনাফা কমে যাওয়ার জন্য করোনাভাইরাসের প্রভাব রয়েছে। কারণ এই ভাইরাসটির প্রকোপে পড়ে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। প্রতিষ্ঠানগুলোরও একই অবস্থা। তারা ঋণও পরিশোধ করতে পারেনি। ফলে ব্যাংকের মুনাফাও কমে গেছে।

এদিকে ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার ৯৬ কোটি ৯৮ লাখ টাকা, যা চলতি বছরে ঘোষিত বোনাস শেয়ারের কারণে বর্তমানে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ হাজার ৮৯৬ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। এ হিসাবে মূলধন বেড়েছে ৭৯৯ কোটি ৫১ লাখ টাকা। তবে এখনও কিছু ব্যাংকের বোনাস শেয়ার দেওয়া বাকি রয়েছে। সেগুলোর প্রদানের মাধ্যমে মূলধন আরও বাড়বে।

বর্তমানে তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে ন্যাশনাল ব্যাংকের সবচেয়ে বেশি পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। ব্যাংকটির পরিশোধিত মূলধন দুই হাজার ৯২০ কোটি ৪০ লাখ টাকা। এরপরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এক হাজার ৬১৯ কোটি ৮৭ লাখ টাকার পরিশোধিত মূলধন রয়েছে আইএফআইসি ব্যাংকের। আর এক হাজার ৬১০ কোটি টাকার পরিশোধিত মূলধন নিয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে ইসলামী ব্যাংক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত