প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ভাতের মাড়ের বহু পুষ্টিগুণ

তন্নীমা আক্তার : [২] ফেন বা ভাতের মাড় শরীরের জন্য উপকারী। এতে থাকা পুষ্টিগুণ শরীরে শক্তি যোগাতে সাহায্য করে। এছাড়াও, ত্বক ও চুল ভালো রাখতেও ভাতের পানি ব্যবহার করা যায়। গ্রামাঞ্চলে কিংবা শহরেও নানী-দাদীদের মুখে হয়ত ভাতের মাড়ের ব্যবহার শুনে থাকবেন অনেকে।গরম মাড়ের মধ্যে পরিমাণ মতো গোলমরিচের গুঁড়া, লেবুর রস, অল্প লবণ ও মাখন মিশিয়ে মজাদার সুপও তৈরি করা সম্ভব।

[৩] জীবনযাপন-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে ভাতের পানি বা মাড়ের নানান উপকারিতা সম্পর্কে জানানো হল।

[৪] শুষ্ক ত্বকের যত্ন: জাপানে হাজার বছর ধরেই ভাতের পানি রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এতে থাকে সোডিয়াম লরল সালফেট যা ডিটারজেন্ট, শ্যাম্পু ও পরিষ্কারকে পাওয়া যায়। প্রতিদিন দুইবার ঠাণ্ডা ভাতের পানি দিয়ে মুখ ধোয়া হলে চমৎকার ফল পাওয়া যায়। এটা খুব ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে। লোমকূপ টানটান করার পাশাপাশি বলিরেখা দূর করতে সহায়তা করে।

[৫] চুলের জন্য উপকারী: এতে আছে ভিটামিন এ, সি, ডি এবং ই যা চুলের হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতা ফেরাতে সাহায্য করে এবং চুলে বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। চুলে ভাতের পানি ব্যবহার করে এক ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

[৬] শক্তিবর্ধক: ভাতের পানিতে থাকা কার্বোহাইড্রেইট শক্তি যোগাতে সাহায্য করে। শরীর খুব সহজেই এতে থাকা উপাদান শোষণ করে এবং তা শক্তিতে রূপান্তর করে। তাৎক্ষণিক শক্তি যোগাতে এক গ্লাস ভাতের পানি চমৎকার কাজ করে।

[৭] শরীরে আরাম অনুভব: গোসলের সময় পানিতে খানিকটা ভাতের পানি মিশিয়ে নিন। এতে শরীরের দুর্বলভাব দূর হয়ে আরাম অনুভূত হবে।

ভাতের পানি ব্যবহারে ত্বক সতেজ ও তরতাজা লাগে। পাঁচ মাস বয়সের উর্দ্ধে যে কোনো শিশুদের খাবারে শ্বেতসার যোগ করতে ভাতের পানি যোগ করতে পারেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত