প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]লাইভের শেষ পর্বে ভক্তদের বিভাজন দূরে রেখে একাত্ম হওয়া কথা বললেন তামিমরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : [২] ক্রীড়াঙ্গনে কোনো দলের বড় শক্তি হলো তাদের সমর্থক। আর বাংলাদেশের ক্রিকেটেও সেই বারোতম খেলোয়াড় হয়ে সহায়ক ভূমিকা পালন করেন ভক্তরা। সাকিব-তামিম-মাশরাফি-মুশফিকদের হয়ে গ্যালারি কিংবা টিভি পর্দায় কোছ রেখে গলা ফাটানো পাগলা ফ্যানদের সংখ্যা নেহায়েত কম না। ৎ

[৩] তবে সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম্যের বদলৌতে নির্দিষ্ট খেলোয়াড়ের ফ্যানভিত্তিক নানা গ্রুপের কারণে ভক্ত-সমর্থকের মধ্যে তৈরি হচ্ছে দূরত্ব। এক তারকার ভক্ত অন্য তারকার ভক্তের সাথে জড়িয়ে যাচ্ছেন বিবাদে। মাঠে খেলতে ১১ জন ক্রিকেটার ভাই, বন্ধু হিসেবে নামলেও তাদের সমর্থকদের এমন আচরণ মোটেই পছন্দ নয় ক্রিকেটারদের।

[৪] তামিম ইকবালের নিয়মিত লাইভ শো এর শেষ পর্বে শনিবার রাতে দেশের ক্রিকেটের অন্যতম চার স্তম্ভ তামিম ইকবাল, মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কথা বলেন ভক্তদের কাদা ছোড়াছুঁড়ি নিয়েও।

[৫] তামিম বলেন, ‘একটা জিনিস দেখবেন প্রত্যেকটা ক্রিকেটারের দেখি তামিমিয়ান, মাশরাফিয়ান, মুশফিকিয়ান, সাকিবিয়ান গ্রুপ আছে। সবারই পছন্দের ক্রিকেটার থাকবে এটা স্বাভাবিক। ইদানিং আমার কাছে মনে হয় কি এই গ্রুপের কারণে একজন আরেকজনকে আক্রমণ করতে থাকে। একজন একজনকে আক্রমণ করা কতটা ঠিক আমি জানিনা তবে আমি অনুরোধ করবো এই আক্রমণ টা যেন না করে।’

[৬] মাশরাফি বলেন, আমাদের ক্ষতি কিন্তু আমরাই করি। আমাদের ক্ষতি কিন্তু বাইরের কেউ এসে করবে না। ধর আজকে আমাকে যে পছন্দ করে তোকে গালি দিচ্ছে, মুশফিককে যে পছন্দ করে দেখা গেল আমাকে গালি দিচ্ছে। আল্টিমেটলি আমরা কার জন্য খেলি? আপনাদের জন্য খেলি, বাংলাদেশের জন্য খেলি। গালি যদি দেন আমাদের সবাইকে এক সাথেই দেন। সমালোচনা করবেন এটা থাকবেই। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে গালি দেওয়া, মুশফিক ভালো খেলছে বলে বাকি ১০ জনের সমালোচনা করলেন…।

[৭] মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে বলি কাদা ছোড়াছুঁড়ি করে কোন লাভ হয় না বরং কাদা নিজের গায়েই লাগে। আলহামদুলিল্লাহ বাংলাদেশ দলের জন্য খেলছি, অন্য যারা আছে তারাও। সবারই পছন্দ অপছন্দ থাকতে পারে। তার মানে এই না যে আমি অন্য আরেকজনকে অপছন্দ করবো। একটা জিনিস মনে রাখতে হবে ভালোর কোন বিকল্প নাই।

[৮] মুশফিকুর রহিম জানান, বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে গিয়ে আমরা কখনো সফল হই কখনো হই না। এর মানে এই নয় যে একজনের কারণে দল হেরে যাবে বা একজনের কারণে দল জিতে যাবে। আমার মনে হয় এখানে সবাই সমান। এখানে শুধু দর্শক না, গণমাধ্যমও একটা অংশ, আমরা জিতলেও একসাথে জিতি হারলেও একসাথে হারি। আমার মনে হয় সম্মানটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ এটা দেওয়া উচিৎ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত