প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ধসের মুখে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ২ কোটি মানুষের জীবিকা, ঈদেও পুঁজি ফেরতের নিশ্চয়তা নেই

আরিফ হোসেন: [২] কেউ চাকুরি হারানোর শঙ্কায়, কেউ আবার নিজেদের শেষ পুঁজিটুকু হারানোর শঙ্কায় দিন পার করছে। বৈশাখের পর এবার সবচেয়ে বড় ব্যবসার মৌসুম ঈদেও মুনাফা দুরে থাক পুঁজি ফেরত পাবার নিশ্চয়তাটুকুও পাচ্ছে না তারা। নিউজ ২৪

[৩] সরকার প্রণোদনা ঘোষণা করলেও তা নিয়ে রয়েছে নানা জটিলতা। ছোট ছোট কারখানা আর হাতে গোনা কয়েক জন শ্রমিক এমন ক্ষুদ্র শিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ী প্রায় ২০ লাখ। বিভিন্ন কুটির শিল্পের সঙ্গেও জড়িত প্রায় ৬৮ লাখ উদ্যোক্তা। সরকারি হিসেবে দেশে ক্ষুদ্র ও মাঝারি মানের এসব শিল্পে কর্মরত প্রায় আড়াই কোটি মানুষ। যাদের প্রায় সবাই করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত।

[৪] টানা লকডাউনে কারখানা বন্ধ তাও আবার এমন এক সময়ে যা ব্যবসার প্রধান দুই মৌসুম। বৈশাখের পর এবার ঈদ সামনে। তবে ক্ষতি কাটিয়ে উঠার কোন সুযোগ কাজে লাগাতে পারছেন না। ঘরে বসেই গুনতে হচ্ছে ভাড়া, বিদ্যৎ বিলসহ নানা খরচ। এজন্য ধীরে ধীরে কারখানা খুলে দেয়ার অনুমতি চান।

[৫] ক্ষুদ্র ও মাঝারি মানের শিল্পের জন্য প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিল। যা বাস্তবায়নে বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে কেন্দ্রিয় ব্যাংক। যেখানে বলা হয়েছে ঋণ নিতে হবে কোন এসোসিয়েশনের সহায়তায়। এছাড়া রয়েছে জামানতের জটিলতা। সব মিলে প্রকৃত উদ্যোক্তারা পাবেন না বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

[৬] বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রকৃত উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে সরকারকে। দিতে হবে জামানতবিহীন সহজলভ্য ঋণ সুবিধা। এছাড়া ঈদ সামনে রেখে বিশেষ ব্যবস্থায় ছোট উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্য বিক্রির ব্যবস্থার কথাও বলছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত