প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ময়মনসিংহে সর্দি, জ্বর ও কাশি নিয়ে পাঁচ জনের মৃত্যু, এলাকায় আতঙ্ক

আজহারুল হক, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: [২] ময়মনসিংহের ঈশ^রগঞ্জে গত ছয় দিনে সর্দি, জ¦র ও কাশিতে আক্রান্ত হয়ে কলেজ ছাত্রসহ পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে।

[৩] এদের মধ্যে গতকাল গতকাল মঙ্গলবার রাতে এক বৃদ্ধ এবং বিকেলে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।
আজ বুধবার দুজনের জানাজাতেই এলাকার লোকজন অংশ নেন। এদিকে কোনো ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। কিন্তু এতকিছুর পরেও মারা যাওয়া পরিবারের লোকজন থাকছেন না ঘরে।

[৪] স্থানীয় সূত্র জানায়, গত চার দিন আগে জ্বর, সর্দি, কাশি ও গলাব্যথা নিয়ে ঢাকা থেকে ময়মনসিহের ঈশ^রগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের গোল্লা জয়পুর গ্রামের বোনের বাড়িতে চলে আসেন নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার জল্লি গ্রামের আব্দুছ ছালামের ছেলে কলেজ ছাত্র হোসেন আলী (২০)। সেখানে অবস্থানের সময় গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে মারা যান। পরে রাতে তড়িঘড়ি করে লাশ নিজ বাড়িতে নিয়ে যায় পরিবারের লোকজন।

৫] অপরদিকে, মারা যাওয়া কলেজছাত্র হোসেন আলী ভাগ্নি জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হওয়ায় তার অবস্থা বেগতিক দেখে আজ বুধবার ভোরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

[৬] অপরদিকে উপজেলার মগটুলা ইউনিয়নের মধুপুর বাজারে আব্দুল বারেক (৬০) নামে এক বৃদ্ধ গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বর, সর্দি ও কাশিতে ভুগছিলেন। এ অবস্থায় পরিবারের লোকজন প্রয়োজনীয় ওষুধ সেবন করালেও তিনি সেরে ওঠেননি। এ অবস্থায় গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে নিজ বসতঘরেই মারা যান।

[৭] এ দুটি মৃত্যুতে এলাকার লোকজন আতঙ্কিত হলেও পরিবারের লোকজন নিজেদের ঘরে আটকে রাখেননি। উপরন্তু বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরা করছেন।

[৮] এছাড়াও উপজেলার কাঁকনহাটি গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হয়ে গত বৃহস্পতিবার মারা যান। একই দিন সন্ধ্যায় মারা যান মাইজবাগ ইউনিয়নের কবীরভুলসোমা গ্রামের মো. নেওয়া আলীর মেয়ে নাজমা বেগম (২৫)। পরদিন সন্ধ্যায় মারা যান তাঁর চাচা আব্দুর রাজ্জাক (৫৫)। দুজনেরই জ্বর, সর্দি ও কাশি ছাড়াও ছিল শ্বাসকষ্ট। পাঁচটি মৃত্যুর ঘটনায় ওই সব এলাকার লোকজন রয়েছে আতঙ্কের মধ্যে।

[৯] ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. নুরুল হুদা খান পাঁচটি মৃত্যুর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, করোনা পরীক্ষার কোন ধরনের যন্ত্রপাতি আমাদের নেই। তার মৃত্যুর পর তাৎক্ষনিক পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি। তবে এ বিষয়ে করোনা প্রতিরোধ কমিটির মাধ্যমে আইইডিসিআরকে জানানো হবে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত