প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মসজিদুল হারাম ও নববি খুলে দেয়ার কারণে করোনা আতঙ্কে হজে যাওয়া নিয়ে যে শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো তা কেটে গেছে, বললেন হাব সভাপতি

লাইজুল ইসলাম: [২]জীবানু ধংসে যে কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছিলো তা পুরো বিশ্বমুসলিম উম্মাহ্’র জন্য। যাতে সব দেশের মানুষ আবারও ওমরা ও হজে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন হজ্জ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ হাবের মালিক শাহাদাত হোসাইন তসলিম ।

[৩] তিনি বলেন, তবে এসব কার্যক্রমের সঙ্গে হজের কোনো সম্পর্ক না থাকলেও যাত্রীদের মধ্যে একটি সঞ্চার ঘটাবে। যাদের মনের ভেতরে করোনা ভীতি ছিলো সেগুলো কেটে যাবে। যদিও করোনার কারণে ওমরা ও ভিজিট ভিসা নিয়ে কিছুটা বিধি-নিষেধ দিয়েছে সৌদি আরব।

[৪] তসলিম বলেন, যারা হজে যাওয়ার তারা যাবেই। প্রাকৃতিক সমস্যা যদি বেশি না হয় আর যদি হজ বন্ধ না হয়ে যায়।

[৫] শাহাদাত হোসাইন বলেন, হজ বন্ধ হওয়ার সুযোগ খুবই কম। এমন আর কখনো হয়নি। সবাই দোয়া করছে পৃথিবী যেনো খুব দ্রুত এই সমস্যা থেকে মুক্তি পায়। তিনি আরো বলেন, হজের জন্য আরো বেশ কয়েকমাস বাকি আছে। এর মধ্যে নিশ্চই করোনা সমস্যার সমাধান হবে। এখনই চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই। হজ সময় অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

[৬] হাব সভাপতি বলেন, সৌদি আরব ওমরা হজের ভিসা ও হোটেল ভাড়াসহ অন্যান্য টাকা এখনো ফেরত দেয়া শুরু করেনি। তবে অচিরেই শুরু করবে বলে জানাগেছে।

তসলিম বলেন, বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের টাকা ইতমধ্যে আমরা ফেরত পেয়েছি। অন্যান্য বিমানের টিকিটের টাকাও ফেরত পেয়েছি। শাহাদাত বলেন, যদি এই টাকা ফেরত না দিতো সৌদি ও বিমান পরিবহনগুলো তবে বেশ বড় ধরণের ক্ষতির মুখে পরতো বিমান ক্ষাত। দুপুরে হাব সভাপতি এসব কথা বলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত