প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্যাসিনোতে অংশগ্রহণকারীরা জান্নাতে যাবে না

আমিন মুনশি : ‘ক্যাসিনো’ ইতালিয়ান শব্দ। ক্যাসিনো বলতে বোঝায় যেখানে জুয়া, নাচ, গান ও বিভিন্ন খেলাধুলার সংমিশ্রণ থাকে। ১৬৩৮ সালে ইতালির ভেনিসে সর্বপ্রথম জুয়ার মাধ্যমে ক্যাসিনো ব্যবসা শুরু হয় বলে বিভিন্ন প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা গেছে। জুয়াকে আরবিতে বলা হয় ‘আল-কিমার’ ও আল-মায়সির’। ইসলামের সূচনালগ্নের আগেও নবী করিম (সা.)-এর আগমনের সময় তৎকালীন ‌মক্কায় নানা ধরনের জুয়ার প্রচলন ছিলো। তিনি সবগুলোকে নিষিদ্ধ করেছিলেন।

বর্তমানে জুয়া-বাজির জন্য বিভিন্ন রকমের আসর বসে বিভিন্ন দেশে। কোথাও হাউজি আবার কোথাও সবুজ টেবিল নামে পরিচিত। ফুটবল ও অন্যান্য খেলাধুলার প্রতিযোগিতায়ও বাজি ধরা হয়। প্রাচীন পদ্ধতি ছাড়াও জুয়ার আরও বহু নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার হয়েছে। যেমন- ফ্লাস, পাশা, বাজি রেখে ঘোড় দৌড়, তাস খেলা, চাক্কি ঘোরানো ও রিং নিক্ষেপ ইত্যাদি। এগুলোর সবই হারাম। জুয়া সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘হে মুমিনগণ! মদ, জুয়া, মূর্তিপূজার বেদী ও ভাগ্য নির্ণায়ক শর ঘৃণ্য বস্তু, শয়তানের কাজ। সুতরাং তোমরা তা বর্জন করো, তাহলেই তোমরা সফলকাম হতে পারবে। শয়তান তো মদ ও জুয়ার মাধ্যমে তোমাদের মধ্যে শত্রুতা ও বিদ্বেষ সৃষ্টি করতে চায় এবং তোমাদের আল্লাহর স্মরণ ও নামাজ আদায়ে বাধা দিতে চায়। তবে কি তোমরা নিবৃত্ত হবে না।’ (সুরা মায়িদা : ৯০-৯১)

উপরোক্ত আয়াতে মহান আল্লাহ যে কয়টি বিষয় বর্জন করার নির্দেশ দিয়েছেন, এর বেশির ভাগই ক্যাসিনোর প্রাণ। একটি ক্যাসিনো মদ, জুয়া, নারী, ভাগ্যনির্ধারক তীর ছাড়া কখনোই জমবে না। আমাদের দেশে সদ্য বন্ধ করে দেয়া ক্যাসিনোগুলোতে জুয়া, মদ ও গান-বাজনার ব্যবস্থা ছিল। অথচ এগুলো জঘন্য হারাম। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) মদ পান, জুয়া খেলা ও ঢোল-তবলাকে হারাম করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘নেশা সৃষ্টিকারী সব বস্তুই হারাম।’ (আবু দাউদ : ৩৬৮৫)

অন্য হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, তিন প্রকার লোকের জন্য আল্লাহ তাআলা জান্নাত হারাম করে দিয়েছেন। ১. সদা মদ পানকারী। ২. পিতা-মাতার অবাধ্য। ৩. দাইয়ুস। (মুসনাদে আহমদ : ৫৩৭২) আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) বলেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলা মদ, জুয়া ও বাদ্যযন্ত্র হারাম করেছেন।’ (বায়হাকি : ৪৫০৩; মিশকাত : ৪৩০৪) আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) বলেন, ‘পিতা-মাতার অবাধ্য সন্তান, জুয়ায় অংশগ্রহণকারী, খোঁটাদাতা ও মদ্যপায়ী জান্নাতে যাবে না।’ (দারেমি : ৩৬৫৩; মিশকাত : ৩৪৮৬)

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত