প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৮০ রানের বড় জয় পেলো কুমিল্লা

রাকিব উদ্দীন : চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মুখোমুখি পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থাকা খুলনা টাইটান্স ও তৃতীয় স্থানে থাকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের স্বিদ্ধান্ত নিয়েছেন টাইটান্স অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। প্রথম ইনিংসে কুমিল্লার দেওয়া ২৩৮ রানের বড় স্কোর সংগ্রহের জন্য ব্যাট করতে নেমে প্রথমদিকে ভালো খেললেও শেষ পর্যন্ত ৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারতে হয় খুলনা টাইটান্সকে।

প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করেন ওপেনার তামিম ইকবাল ও এভিন লুইস। দু’জন মিলে গড়েন ৫৮ রানের জুটি। তবে সেই জুটি ভেঙে দেন মাহমুদউল্লাহ। তার বলে ডেভিড উইজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ২৫ রানে ফেরেন তামিম। এরপর ব্যাটিংয়ে এসে রান যোগ করার আগেই সাজঘরের পথ ধরেন এনামুল হক। মাহমুদউল্লাহ’র বলে নাজমুল হাসান শান্ত’র হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। এরপর ইমরুল কায়েসকে সঙ্গে করে ব্যাটে ঝড় তোলেন আরেক ওপেনার এভিন লুইস। দু’জন মিলে গড়েন ৯৭ রানের জুটি। তবে দলীয় ১৫৫ রানে ইমরুলকে ফেরার শরিফুল ইসলাম। তার বলে এলবির শিকার হয়ে ২১ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৩৯ রানে ফেরেন ইমরুল। এরপর থিসারা পেরেরা (১১) ও শহীদ আফ্রিদি (১) আউট হয়ে ফিরলেও শামসুর রহমানকে সঙ্গে করে শতক তুলে নেন লুইস। ৪৭ বলেই শতক হাঁকান তিনি। শেষ পর্যন্ত ৪৯ বলে ৫ বাউন্ডারি ও ১০টি ওভার বাউন্ডারিতে ১০৯ রানে অপরাজিত থাকেন এই উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান। এছাড়াও ১৫ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৮ রানের অপরাজিত থাকেন শামসুর।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও কার্লোস ব্রাথওয়েইট ২টি করে উইকেট নেন। এছাড়াও শরিফুল নেন ১টি উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে শুরুটা বেশ ভালোই করেছিল খুলনা। ৫.৩ ওভারে খুলনার দুই ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী এবং ব্রেন্ডন টেইলর তুলে নেন ৫৫ রান। জুনায়েদ ২৪ বলে চারটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২৭ রান। আরেক ওপেনার টেইলর ৩৩ বলে ৫টি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৫০ রান। ১০ বলে দুই বাউন্ডারিতে ১৩ রান করে বিদায় নেন ডেভিড মালান। আর ৭ বলে ১১ রান করে বিদায় নেন দলপতি মাহমুদউল্লাহ। কার্লোস ব্রাথওয়েইটের ব্যাট থেকে আসে ১৩ বলে ২২ রান। এরপর নাজমুল হোসেন শান্ত ১৪, আরিফুল হক ২, তাইজুল ইসলাম ১, ডেভিড উইসি ৮, সাদ্দাম হোসেন ০ রান করেন। হ্যাটট্রিক করতে ১৯তম ওভারে কুমিল্লার পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজ ফিরিয়ে দেন ডেভিড উইসি, তাইজুল ইসলাম এবং সাদ্দাম হোসেনকে।

বল হাতে কুমিল্লার পাকিস্তানি স্পিনার আফ্রিদি ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে তুলে নেন তিনটি উইকেট। মেহেদি হাসান ৪ ওভারে ২৮ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ৩ ওভারে ২৯ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট। মোহাম্মদ শহীদ ২ ওভারে ২৪ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। ওয়াহাব রিয়াজ ২.৫ ওভারে ১৪ রান দিয়ে পান তিনটি উইকেট। লঙ্কান তারকা থিসারা পেরেরা ৩ ওভারে ২৮ রান খরচায় তুলে নেন একটি উইকেট।

উল্লেখ্য, পয়েন্ট টেবিলে উপরে ওঠার জন্য কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে ম্যাচটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিপিএলে এখন অবধি আট ম্যাচ খেলে পাঁচ জয়ে টেবিলের চতুর্থ অবস্থানে আছে তারা। অপরদিকে খুলনার জন্য ম্যাচটি নিয়ম রক্ষার ম্যাচ বলা চলে। ইতিমধ্যে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছে দলটি। দশ ম্যাচ খেলে দুই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে আছে তারা।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স স্কোয়াডঃ তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শোয়েব মালিক, অাসেলা গুনারত্নে, লিয়াম ডসন, আবু হায়দার রনি, এনামুল হক বিজয়, মেহেদি হাসান, জিয়া-উর রহমান, শহিদ আফ্রিদি, থিসারা পেরেরা, মোশাররফ হোসেন রুবেল, মোহাম্মদ শহীদ, শামসুর রহমান শুভ, সঞ্জিত সাহা, এভিন লুইস, ওয়াকার সালমা খাই, আমের ইয়ামিন, ওয়াহাব রিয়াজ।

খুলনা টাইটান্স স্কোয়াডঃ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, ডেভিড মালান, আলী খান, জহুরুল ইসলাম, শরীফুল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ আল-আমিন, জহির খান, শুভাশীষ রায়, জুনায়েদ সিদ্দিকী, তানভীর ইসলাম, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, লাসিথ মালিঙ্গা, ইয়াসির শাহ, ব্র্যান্ডন টেইলর, পল স্টার্লিং, ডেভিড ভিসে।

ম্যাচটি সরাসরি দেখুন….

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত