প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চট্টগ্রামে উম্মুক্ত উদ্যান প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে চসিক

মো. শহিদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর ২নং এলাকায় একটি উম্মুক্ত উদ্যান প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। দুই একর জমির উপর “সোল স্কোয়ার বা প্রাণের স্পন্দন” নামের এই উম্মুক্ত উদ্যান গড়ে তুলা হবে। সম্পূর্ণ বেসরকারি অর্থায়নে এই উম্মুক্ত পার্কটি নির্মিত হবে। রিফর্ম লিঃ এবং স্টাইল লিডিং আর্কিটেক্টস লিঃ এই উদ্যান নির্মাণ করবে। গ্রিন ও ক্লিন সিটি কর্মসুচির অংশ হিসেবে বর্ণিল আলোকসজ্জায় সাজিয়ে তুলতে রিফর্ম লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্থপতি মোহাম্মদ মাসুম এবং স্টাইল লিডিং আর্কিটেক্টস লিঃ চেয়ারম্যান স্থপতি মিজানুর রহমানকে দায়িত্ব প্রদান করেন সিটি মেয়র। সাম্প্রতিক চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এবং উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানের মধ্যকার এক চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

এসময় চসিকের পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সামসুদ্দোহা উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে রিফর্ম লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্থপতি মোহাম্মদ মাসুম এবং স্টাইল লিডিং আর্কিটেক্টস লিঃ চেয়ারম্যান স্থপতি মিজানুর রহমান স্বাক্ষর করেন। এছাড়া চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে চসিক কাউন্সিলল এইচ এম সোহেল, সাহেদ ইকবাল বাবু, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম সহ বিভাগীয় প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

সিটি মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন বলেন, নগরবাসীর বিনোদনের জন্য বিপ্লব উদ্যান প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে এ পার্কে বিনোদনের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা নেই বললেই চলে। তাই এই উদ্যানকে উম্মুক্ত চত্বরে পরিণত করতে সময় উপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় । উন্মুক্ত পার্কে প্রশস্ত ও দীর্ঘ ওয়াকওয়ে, বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের মানসিক প্রশান্তির লক্ষে উম্মুক্ত প্লাজা এবং নির্মল বাতাসের জন্য উদ্যান ও জলাধার তৈরিই এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। এই লক্ষ্যে  উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান উদ্যানের চারপাশের প্রাচীর অপসারণ করে বিপ্লব উদ্যানকে উন্মুক্ত প্লাজায় পরিণত করবে। এতে নগরবাসীর মানসিক প্রশান্তির জায়গা হয়ে উঠবে এবং পার্কে প্রবেশের ক্ষেত্রে টিকেট লাগবে না।

জানাগেছে, এই উম্মুক্ত উদ্যানে বেড়াতে পারবেন স্বাস্থ্য সচেতন মানুষ। পার্কে বিশাল অংশ জুড়ে পরিকল্পিতভাবে লাগানো হবে হরেক রকম ফুল ও সৌন্দর্যবর্ধনের গাছপালা। মানসিক প্রশান্তির জন্য থাকবে আলোকিত জলাধার ও সুবিশাল গ্লাস টাওয়ার । এতে আলোক স্তম্ভের প্রতিবিম্ব প্রতীয়মান হবে। জলাধারের মাঝে থাকবে দৃষ্টিনন্দন বর্ণিল ফোয়ারা। ক্লান্তি দূর করতে থাকবে বসার বেঞ্চ ও গ্যালারী। মাঠ জুড়ে থাকবে এলইডি লাইট,গার্ডেন লাইট,আন্ডার ওয়াটার লাইট । ফলে সন্ধ্যার পর আলো ঝলমলে হয়ে উঠবে উম্মুক্ত পার্কটি।এছাড়া শিশুদের খেলাধুলার জন্য থাকছে বিভিন্ন ধরনের রাইড সরঞ্জাম । পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য গনশৌচাগার সার্বক্ষণিকভাবে উন্মুক্ত থাকবে। রক্ষণাবেক্ষণের জন্য থাকছে প্রাইভেট ম্যানটেইনেন্স সুবিধা। অত্যাধুনিক বাস স্টপেজের পাশাপাশি থাকছে ফ্রি ওয়াই-ফাই, ইনফরমেশন ক্যাশ মেশিন, কিডস কর্ণার, ফুড কোর্ট, এটিএম প্লাজা, ট্যুরিস্ট ইনফরমেশন, মেনেজমেন্ট রুম ইত্যাদি। আরো থাকবে দর্শণার্থীদের জন্য খাদ্য ও প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী ক্রয়ের ব্যবস্থা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত