শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৪:০৫ দুপুর
আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৪:০৫ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বাবর-রিজওয়ানের সমালোচকদের নিয়ে শাহিন আফ্রিদির উপহাস 

শাহিন-বাবর-রিজওয়ান

স্পোর্টস ডেস্ক: সাম্প্রতিক সময়ে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) বা এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) ইভেন্টগুলোতে সেভাবে পারফর্ম করতে পারেনি পাকিস্তান। গত কিছুদিন ধরে দলটির ব্যর্থতার দায় দেয়া হচ্ছিলো দুই ওপেনার বাবর আজম এবং মোহাম্মদ রিজওয়ানকে। কেননা দুজনই বেশ ধীরগতিতে ইনিংস গড়তে পছন্দ করেন। তবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে উদ্বোধনী জুটিতে দুই শতাধিক রান করে তাক লাগিয়ে দেন রিজওয়ান-বাবর। সতীর্থদের এমন পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত হয়ে সমালোচকদের জবাব দেন ইনজুরির কারণে দলে না থাকা শাহীন শাহ আফ্রিদি। ডন

বাবর-রিজওয়ানের অনেক বেশি সমালোচনা করেছিলেন দেশটির সাবেক পেসার আকিব জাভেদ। মাত্র দুদিন আগেই সমালোচকদের পাল্টা জবাব দেন বাবর। সাবেক ক্রিকেটাররা এমন মন্তব্য করায় হতাশা প্রকাশ করেন তিনি। এর একদিন পর সংবাদ মাধ্যমে এসে রিজওয়ান জানান, সৃষ্টিকর্তা যেন সমালোচকদের মঙ্গল করে। ক্রিকফ্রেঞ্জি

আগে মুখে জবাব দিলেও এবার অবশ্য দুজনই উত্তর দিয়েছেন ব্যাটে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৯.৩ ওভারেই দলের জয় নিশ্চিত করে বাবর-রিজওয়ান। পাকিস্তানের অধিনায়ক সেঞ্চুরি পেলেও কাঙ্খিত সেঞ্চুরিটি পাননি উইকেটরক্ষক রিজওয়ান।

দল জেতার পর শাহীন আফ্রিদি লিখেন, আমার মনে হয়, সময় হয়েছে অধিনায়ক বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানকে সরিয়ে দেওয়ার। এত স্বার্থপর ক্রিকেটার দুজন! ঠিকভাবে খেললে তো ম্যাচ ১৫ ওভারেই শেষ হয়ে যেত। অথচ দুজন শেষ ওভার পর্যন্ত খেলা টেনে নিয়ে গেছে। এটা নিয়ে আন্দোলন করা উচিত, তাই না? 
সমালোচকদের খোঁচা দিয়ে শেষ লাইনে তিনি লিখেন, এই পাকিস্তান দলকে নিয়ে আমি দারুণভাবে গর্বিত। এর আগে সাবেক পেসার ও পিএসএলের দল লাহোর কালান্দার্সের কোচ আকিব জাভেদ বলেছিলেন, করাচি কিংসের বিপক্ষে ম্যাচ থাকলে বাবরকে আউটই করতে চাইতেন না লাহোরের বোলাররা। যেন দলের প্রয়োজনীয় রান রেট বেড়ে না যায়।

জাভেদের ভাষায়, দলের কৌশল থাকে বাবরকে আউট না করা। কারণ, সে আপন গতিতে ব্যাট করে এবং দলের প্রয়োজনীয় রান রেট বাড়তেই থাকে।

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৬৬ বলে ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন বাবর। ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও পাঁচটি ছক্কার মার। উইকেটরক্ষক রিজওয়ান করেন ৫১ বলে অপরাজিত ৮৮ রান। ইনিংসে ছিল পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কার মার। এই জয়ে সাত ম্যাচ সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফিরল স্বাগতিকরা। রিপোর্ট: মাকসুদ রহমান

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়