শিরোনাম
◈ জার্মানি সফর নিয়ে আজ প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন ◈ খতনা করাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু: ৩ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিএমডিসিকে নির্দেশ ◈ ট্রান্সকম গ্রুপের ৫ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার ◈ ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়ে ফেলা সেই ছাত্রলীগ নেতাকে হল ছাড়ার নির্দেশ ◈ মালয়েশিয়ায় ৭৫ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার ◈ শিবচরে এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৫ ◈ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি ৩য় বর্ষ পরীক্ষার ফল প্রকাশ ◈ যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জি কে শামীমের জামিন ◈ চিনির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার ◈ গোলটেবিল আলোচনায় বাণিজ্যমন্ত্রী, প্রয়োজনের তুলনায় মানুষের হাতে বেশি টাকা আছে

প্রকাশিত : ১৬ নভেম্বর, ২০২৩, ০৪:৫৬ দুপুর
আপডেট : ২১ নভেম্বর, ২০২৩, ১২:১৬ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মেজর (অব.) আখতারের চিঠি 

প্রধানমন্ত্রী আমাকে বেগম জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে  বলেছেন, তারেক রহমান বাধা দিচ্ছেন 

সালেহ্ বিপ্লব: [২] বিএনপির সাবেক এই এমপি ফেসবুকে এ কথা  জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তারেক রহমান আমাকে দেশমাতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছে না। দেশমাতার মুক্তি, সকল রাজবন্দিদের মুক্তি, সবার সকল মামলা প্রত্যাহার করার জন্য সরকার একটি সবুজ সংকেত আমাকে দিয়েছে। তার জন্য দেশমাতা খালেদা জিয়ার সম্মতি দরকার। কিন্তু তারেকের ভারপ্রাপ্ত পদ চলে যাবে বলে সে আমাকে দেশমাতার সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছে না। 

[৩] তিনি আরো বলেন, সবার আগে আমাদের দেশ। আমাদের দেশকে বাঁচাতে মুজিব কন্যা শেখ হাসিনার বিকল্প কোন নেতা নাই। তিনি দেশপ্রেমিক, জনদরদী, মহান ও মহামানবিক। শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার চেয়ে ত্যাগ আর কারো নাই। দেশমাতা খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তি ও সকল মামলা প্রত্যাহারের জন্য শেখ হাসিনা ছাড়া আর কোন পথ নাই। 

[৪] খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়ে বুধবার তারেক রহমানের কাছে একটি চিঠি লিখেছেন মেজর (অব.) আখতার। 

[৫] চিঠিতে তিনি বলেছেন, আপনি বিশ্ববাসী ও দেশের জনগণকে বুঝিয়ে দেন - দেশ ও জাতির স্বার্থে এবং দেশমাতা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার স্বার্থে যে কোন ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত। আমার বয়স ৭২ বছরের উপরের। এই বয়সে দল, দেশমাতা ও জিয়ার সঙ্গে বেঈমানী করবো না। আমি যা করছি ও করার চেষ্টা করছি তা শুধুমাত্র দেশ, জাতি ও দেশমাতার জন্য। আমি ব্যক্তিগতভাবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি দেশমাতা খালেদা জিয়াসহ বিএনপির সকল রাজবন্দিদের ছেড়ে দিতে সম্মত আছেন। তিনি আমাকে একটি দায়িত্ব দিয়েছেন এবং আমাকে দেশমাতার সঙ্গে কথা বলে তা নিশ্চিত করতে বলছেন। তাই গতকাল দেশমাতার সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। আপনার অনুমতি ছিল না বলে দেখা করতে পারি নাই। সাড়ে ৪ ঘন্টা ডাক্তার জাহিদের সঙ্গে বসেছিলাম। দেশমাতার মেডিকেল টিমের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেছি। তারাও বলেছে দেশমাতার মুক্তির দরকার। দেশমাতার প্রেসক্রিপসানের ছবি আমাকে দেখিয়েছে। কিন্তু দেশমাতার সঙ্গে দেখা করতে আমাকে দেয় নাই। দেশমাতার মুক্তির জন্য আপনার সহায়তা চাচ্ছি। ভাল থাকবেন। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়