শিরোনাম
◈ বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য ভিসা বন্ধ করল আরব আমিরাত ◈ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সাথে সেনাবাহিনী প্রধানের সাক্ষাৎ ◈ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে নরওয়ের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাত ◈ এ সংঘর্ষ কোনভাবেই কাম্য নয়, দোষীদের বিচারের দাবি করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলীয় নেতা-কর্মী ও বিত্তবানদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ◈ ৬ দিন বন্ধের পর ফের চালু ইন্টারনেট ◈ বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মীর নাশকতার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার তথ্য মিলেছে: ডিবির হারুন ◈ চার জেলায় কারফিউ চলবে, অন্যগুলোর সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসনের ◈ চট্টগ্রাম এবং বরিশালে স্বল্প পরিসরে যাত্রীবাহী বাস চলাচল শুরু ◈ বুধবার থেকে খোলা থাকবে অফিস আদালত: জনপ্রশাসনমন্ত্রী 

প্রকাশিত : ০২ মার্চ, ২০২৩, ০৯:৩৭ রাত
আপডেট : ০২ মার্চ, ২০২৩, ০৯:৩৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আমার ভাষা আমার গর্ব

প্রতিকী

নাঈমুল হাসান তানযীম: বাংলা ভাষা। বিশ্বের বুকে একমাত্র ভাষা হিসেবে স্বীকৃত, যে ভাষার জন্য জীবন দিয়েছে নিজ জাতি। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি যেদিন উর্দুকে বাংলা ভাষাভাষী মানুষের ওপর জোরপূর্বক চাপিয়ে দেয়ার প্রতিবাদে এবং মাতৃভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য রাজপথে ফুঁসে উঠেছিল বাঙালি বীর জনতা।

সেদিন রফিক সালাম বরকতদের বুকের তাজা রক্তে সৃষ্টি হয়েছিল নতুন এক ইতিহাস। আমরা পেয়েছিলাম মাতৃভাষার মর্যাদা ও প্রাণ খুলে কথা বলার স্বাধিকার। তাদের এই সুমহান আত্মত্যাগের বিনিময়েই অবশেষে ১৯৫৬ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি (৪ ফাগুন, ১৩৬২ সাল) উর্দুর সাথে সাথে বাংলা ভাষাকেও রাষ্ট্রভাষা হিসেবে ঘোষণা করতে বাধ্য হয়েছিল তৎকালীন পাকিস্তানি সরকার।

পৃথিবীর ইতিহাসে এ এক অনন্য ঘটনা। এমনকি বিশ্ব দরবারেও এ ভাষা বিশেষ মর্যাদায় বরিত। ১৯৯৯ সালে একুশে ফেব্রুয়ারিকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছে জাতিসঙ্ঘ। যার ফলে এখন প্রতি বছর ২১ ফেব্রুয়ারি পৃথিবীজুড়ে পালিত হচ্ছে দিবসটি। ‘ভাষার জন্য আন্দোলন’ কিংবা ‘আন্দোলনের অন্যতম উপলক্ষ ভাষা’, এমনভাবে অধিকার আদায়ের আন্দোলন বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই হয়েছে। কিন্তু বাংলা ভাষাভাষী মানুষের এ আন্দোলন ও সংগ্রাম বিশেষভাবে স্মরণীয়।

ভাষার গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট এথনোলগের ২০২০ সালের ২২তম সংস্করণের পরিসংখ্যান আমাদের জানাচ্ছে, পৃথিবীজুড়ে মোট বাংলাভাষীদের সংখ্যা প্রায় ২৬ কোটি ৫০ লাখের (ভাষা-গবেষকদের ধারণা হিসাবে ২৮ কোটি হবে) কিছু বেশি। ক্রমিক বিচারে এর অবস্থান সারা বিশ্বের ভাষাগুলোর মধ্যে পঞ্চম।

একজন বাংলা ভাষাভাষী মানুষ হিসেবে আমি গর্বিত। কারণ এমনি এমনিই আমি এ ভাষা পাইনি। এর জন্য করতে হয়েছে অনেক সংগ্রাম। বিলিয়ে দিতে হয়েছে নিজেদের জীবনও। এখন আমরা মনের সুখে কথা বলতে পারি। নিজ ভাষায় নিজের মতো করতে পারি ভাববিনিময়। কিন্তু একসময় তো সেটি সম্ভব ছিল না শত চাওয়া সত্ত্বেও। বাঙালি বীরেরা এ অধিকার অবশেষে ছিনিয়ে এনেছিল নিজেদের বুকের তাজা রক্তের বিনিময়ে। আমরা আজ তাঁদের স্মরণ করছি গভীর শ্রদ্ধায়।

এনএইচটি/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়