শিরোনাম
◈ নাবিকদের ভিসা জটিলতা নিরসনে আইএমও’র সহযোগিতার আশ্বাস ◈ আগামী বছরের শুরুতে তৃতীয় টার্মিনালে যাত্রী পরিবহন শুরু হতে পারে: বিমানমন্ত্রী ◈ ভাইভা হলেও তদন্তের আগে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ হবে না ◈ ভাষণে নয়, রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে দেশ স্বাধীন হয়েছে: গয়েশ্বর রায় ◈ একশ ভাগ সফলতা নিয়েই বাংলাদেশে ফিরছি: ডিবি প্রধান  ◈ বাংলাদেশ আইএমও’র মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু মেরিন স্কলারশিপ চালু করতে চায়: প্রধানমন্ত্রী ◈ ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক এমপি মনজুর হোসেন মারা গেছেন ◈ ঈদে সাধারণ মানুষের কাছে অতিরিক্ত ভাড়া  না নেওয়ার নির্দেশ ওবায়দুল কাদেরের  ◈ জামানত হারালেন ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই ◈ দেশ এখন দুর্বৃত্ত ও মাফিয়াদের দখলে: মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০১:৪১ দুপুর
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৪:৩৭ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনা করতে কাতার যাচ্ছে ইসরায়েলি প্রতিনিধিদল

সাজ্জাদুল ইসলাম: [২] হামাসের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি ও গাজায় আটক জিম্মিদের মুক্তির লক্ষ্যে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য কাতারে প্রতিনিধিল পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা। শনিবার এই অনুমোদন দেওয়া হয় বলে ইসরায়েলের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। একই কথা জানিয়েছে ইসরায়েলি গণমাধ্যম। এএফপি

[৩] এই আলোচনা ফ্রান্সের প্যারিসে শুরু হয়েছিল। সেখানে যুক্তরাষ্ট্র, মিসর, কাতারের মধ্যস্থতাকারীদের সঙ্গে বৈঠক করেন ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ ও শিন বেতের প্রধানেরা। এই আলোচনায় ফিলিস্তিনি বন্দীদের বিনিময়ে ইসরায়েলি জিম্মিদের মুক্তির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কয়েক সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধবিরতির বিষয় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

[৪] ইসরায়েলের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জাচি হানেবি শনিবার সন্ধ্যায় এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলেন, তাদের প্রতিনিধিদল ইতিমধ্যে প্যারিস থেকে ফিরে এসেছে। সম্ভবত একটি সমঝোতার দিকে অগ্রসর হওয়ার সুযোগ আছে। প্যারিস বৈঠকের ফলাফলের বিষয়ে গতি আনতে ইসরায়েলি আলোচকদের তাদের মন্ত্রিসভার সঙ্গে কথা বলতে বলা হয়েছিল বলে সাক্ষাৎকারে জানান জাচি হানেবি। পরে ইসরায়েলি গণমাধ্যম জানায়, মন্ত্রিসভার সঙ্গে আলোচকদের বৈঠকটি শেষ হয়েছে। আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য আগামী দিনগুলোতে কাতারে একটি প্রতিনিধিদল পাঠাতে সম্মত হয়েছে ইসরায়েলি মন্ত্রিসভা। 

[৫] জিম্মিদের মুক্ত করার জন্য একটি সমঝোতায় পৌঁছাতে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী  নেতানিয়াহুর সরকারের ওপর চাপ ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপের দাবিতে শনিবার ইসরায়েল হাজারো মানুষ বিক্ষোভ করেছেন। গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস। এই হামলায় প্রায় ১ হাজার ১৩৯ জন নিহত এবং প্রায় ২৫০ জন জিম্মি হিসেবে আটক হন । ওই দিন থেকেই ইসরায়েল গাজায় হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। ্এতে অন্তত ২৯ হাজার ৬১৪  ফিলিস্তিনি নিহত এবং প্রায় ৭০ হাজার আহত হয়েছেন। হতাহতেদের বেশির ভাগই নারী ও শিশু। গত নভেম্বরের শেষের দিকের এক সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধবিরতির সময় শতাধিক জিম্মিকে ছেড়ে দেয় হামাস। সম্পাদনা: রাশিদ 

 

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়