শিরোনাম
◈ শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরাতে আইনশৃঙ্খলা  বাহিনীকে কঠোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ◈ সরকার আলোচনার কোনো পরিস্থিতি রাখেনি, কর্মসূচী অব্যাহত রাখার ঘোষণা: বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন ◈ বিটিভিতে হামলা-আগুন, সম্প্রচার বন্ধ ◈ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ◈ আমরা ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি, এটা দুর্বলতা নয়: ডিবিপ্রধান ◈ নরসিংদীতে গুলিতে নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আহত শতাধিক ◈ চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ২ ◈ নেত্রকোনায় ইউএনও, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আহত অর্ধশত, ৭ আন্দোলনকারী গুলিবিদ্ধ ◈ শান্তিপূর্ণ সমাধানের দিকে এগোতে চায় সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে বিএনপি-জামাত আগুন-সন্ত্রাস নিয়ে মাঠে নেমেছে: ওবায়দুল কাদের   

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ, ২০২৩, ০১:২০ দুপুর
আপডেট : ২৯ মার্চ, ২০২৩, ১২:৫১ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের জুতা রপ্তানি বেড়েছে ৬৪ শতাংশ 

বাংলাদেশের জুতা রপ্তানি

ঢাকা ট্রিবিউন, বিজনেস রিপোর্ট: বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে জুতা-স্যান্ডেল রপ্তানি ৬৪.৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ রপ্তানি আয়ের পরিমান ছিল ৪৫ কোটি ১৪ লাখ ডলার। এর আগের বছর ২০২১ সালে দেশটিতে জুতা রপ্তানিতে আয় হয় ২৭ কোটি ৪৫ লাখ ৮০ হাজার ডলার। যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেতারা চীন ও ভিয়েতনাম বাজার থেকে অন্যত্র বাজার অনুসন্ধান করছে। এ প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে জুতা রপ্তানি বেড়েছে। চীন থেকে রপ্তানির ফরমায়েশ কিছু অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। এরফলে আগামী দিনগুলোতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের চেয়েও যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের জুতার বড় বাজারে পরিণত হবে বলে আশা করছেন রপ্তানিকারকরা। রপ্তানিকারকরা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেতারা বিভিন্ন দেশ থেকে জুতা কেনার চেষ্টা করছেন এতে বাংলাদেশ, ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও কম্বোডিয়া সুবিধা পাচ্ছে। এসব দেশের ক্রমবর্ধমান হারে দেশটিতে জুতা রপ্তানি করার সুযোগ ও সম্ভাবনার সৃষ্টি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য উপাত্ত অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজাবে চামড়ার জুতা রপ্তানি ৬৩.২৫ শতাংশ বেড়েছে। যার পরিমান ৪০ কোটি ৬৪ লাখ ৯০ হাজার ডলার। যা আগের বছরে ছিল ২৪ কোটি ৯০ লাখ ডলার। ২০২২ সালে বিশ্বে মোট জুতা আমদানি ৩২.৫১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ৩৩৪৩ কোটি ডলার। ২০২১ সালে যা ছিল ২৫২৩ কোটি ডলার।

২০২২ সালে চীন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের জুতা আমদানি ২৩ শতাংশ বেড়েছে। যার পরিমান ছিল ১২১৫ কোটি ডলার। আগের বছর যার পরিমান ছিল ৯৮৮ কোটি ডলার। ২০২২ সালে ভিয়েতনাম থেকে যুক্তরাষ্ট্রে জুতা আমদানি বেড়েছে ৪১.১৯ শতাংশ। যার পরিমান ছিল ১০৪৮ কোটি ডলার। আগের বছর ছিল ৭৪২ কোটি ডলার। 

ভারত থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জুতা রপ্তানি বেড়েছে ৬৪.১৯ শতাংশ, ৭৪ কোটি ৫০ লাখ ৩০ হাজার ডলার। ইন্দোনেশিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে জুতা রপ্তানি বেেেড়ছে ৫৩.০৪ শতাংশ, ৩০০ কোটি ডলার। এর আগের বছ এর পরিমান ছিল ১৯৬ কোটি ডলার। কম্বোডিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে জুতা আমদানি ২০২২ সালে বেড়েছে ৪৭.৬৮ শতাংশ, ১০০ কোটি ডলার যা আগের বছর ছিল ৬৭ কোটি ১৯ লাখ ডলার।

রাংলাদেশ লেদারগুডস এন্ড ফুটওয়ার ম্যানুফ্যাকটারার্স এন্ড এক্সপোটার্স এসোসিয়েন এর সভাপতি সৈয়দ নাসিম মনজুর শনিবার নিউ এজকে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ব্রান্ড ও ক্রেতারা চীন ও ভিয়েতনামের বাইরে তাদের ক্রয়ের উৎস বাড়ানোর চেষ্টা করায় বাংলাদেশ, ভারত ও ইন্দোনেশিয়া সুবিধা পাচ্ছে।

তিনি বলেন, ভূ-রাজনৈতিক কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেতারা চীনকে আগামী বছরগুলোতে নির্ভরযোগ্য উৎস বলে মনে করছেন না। তারা চীন ও ভিয়েতনামের ওপর নির্ভরতা কমাতে চাচ্ছেন। দেশ দু’টিতে এখন শ্রম স্বল্পতা দেখা যাচ্ছে। সৈয়দ নাসিম বলেন, আন্তর্জাতিক জুতার বাজার থেকে সুবিধা লাভের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশের। তবে তা লাভের জন্য বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এপেক্স ফুটওয়ারের পরিচালকও সৈয়দ নাসিম। তিনি বলেন, এ সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হলে বাংলাদেশকে বাণিজ্য ব্যয় হ্রাস ও দক্ষতা বাড়াতে হবে। অনুবাদ: সাজ্জাদুল ইসলাম

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়