শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:৪১ দুপুর
আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:৪১ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীকে বরণে প্রস্তুত চট্টগ্রামবাসী

স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স

এম ইউছুপ রেজা, চট্টগ্রাম: আগামীকাল রোববার (৪ ডিসেম্বর) চট্টগ্রামে আসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পলোগ্রাউন্ড মাঠে মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন তিনি। ইতোমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী ও সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে বরণ করতে সবধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন চট্টগ্রামবাসী।

প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে ব্যাপক লোকসমাগমের মধ্যদিয়ে সর্ববৃহৎ সমাবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগ। ইতোমধ্যে স্লোগান উঠেছে, ৪
ডিসেম্বর বিকেলবেলা/ পলোগ্রাউন্ডে জমবে মেলা/ প্রধানমন্ত্রীর জনসভায়/ চাটগাঁবাসী আয় ছুটে আয়। 

ফুটপাত, সড়কদ্বীপ, ফ্লাইওভারে পড়ছে রঙের ছোঁয়া। আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার থেকে এমএ মান্নান ফ্লাইওভারের মাঝের অংশটির ল্যাম্পপোস্টে ৭০-এর নির্বাচনে বিজয় ও স্বাধীনতার প্রতীক নৌকার আকৃতিতে এলইডি বাতি লাগিয়ে আলোকসজ্জা করেছে চসিকের বিদ্যুৎ বিভাগ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমণ ও সমাবেশকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে, দেখা দিয়েছে প্রাণ চাঞ্চল্য।পোস্টার-ব্যানারে ছেয়ে গেছে পুরো নগর ও উপজেলাগুলো। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের পাশাপাশি নগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা নিজেদের নামে ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার টাঙিয়ে তাঁদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। জনসভা সফল করতে দিন- রাত নগর থেকে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। এই জনসভায় লাখো মানুষের সমাবেশ ঘটবে বলে আশা করছেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

সর্বশেষ পলোগ্রাউন্ড মাঠ পরিদর্শন শেষে এক ব্রিফিংয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় জানান, নগরজুড়ে সাড়ে ৭ হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হবে। এজন্য তথ্যপ্রযুক্তি ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নিরাপত্তা পরিকল্পনা সাজানো হচ্ছে। সর্বোচ্চ নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে প্রধানমন্ত্রীর এই কর্মসূচি সম্পন্ন করার জন্য নগরবাসীর সহযোগিতা চান তিনি।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা সমন্বয় করে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স। তাদের তত্ত্বাবধানে এবং পরামর্শক্রমে পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় মোতায়েন থাকবে। ‘এসএসএফ, পিজিএফ, সাদা পোশাকের পুলিশ, ইউনিফর্মের পুলিশ, গোয়েন্দা সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। নিরাপত্তায় আর্চওয়ে, ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা, ড্রোনসহ প্রযুক্তিগত সকল কিছু যুক্ত থাকবে। প্রযুক্তি এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আমরা নিরাপত্তা পরিকল্পনা নিচ্ছি। শুধু পলোগ্রাউন্ডেই পুলিশ থাকবে না, পুরো শহর একটি নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হবে।

শনিবার (৩ নভেম্বর) সকালে পলোগ্রাউন্ড মাঠ পরিদর্শন করে প্রস্তুতির সর্বশেষ অবস্থান জানান দিতে সাংবাদিকদের কথা বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড.হাসান মাহমুদ।

প্রতিনিধি/এইচএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়