শিরোনাম
◈ গাজায় যুদ্ধবিরতি হলেও হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে হামলা বন্ধ হবে না:ইসরায়েল ◈ চার মাসের মধ্যেই প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ◈ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিবসটির গুরুত্ব বাড়াতে সরকার কার্যকর উদ্যোগ নেবেন, আশা জি এম কাদেরের ◈ সরকার সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী ◈ ফিলিস্তিনের বিপক্ষে অপতথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন পেছাল ◈ গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে ইসরায়েল: লুলা দা সিলভা ◈ গ্রামীণ টেলিকমসহ তার প্রতিষ্ঠানগুলোর লভ্যাংশ কাউকে দেয়া যায় না: ড. ইউনূস   ◈ মুখ খুলে মানুষ গণতন্ত্রের কথা বলতে পারছে না: ড. ইউনূস  ◈ স্বাস্থ্যসেবা বিকেন্দ্রীকরণ শুরু হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০১:১৭ রাত
আপডেট : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০১:১৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

'শাসন' করায় শিক্ষককে পেটাল শিক্ষার্থী!

ছবি: সংগৃহীত

ডেস্ক রিপোর্ট: ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে 'শাসন' করেছিলেন শিক্ষক আবু বক্কার সিদ্দিক। আর তাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে অনুসারীদের নিয়ে তাকে পিটিয়ে আহত করেছে শিক্ষার্থী ফারদিন হোসেন। ঢাকা পোস্ট

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে পাবনার সুজানগর উপজেলার সাগরকন্দী রিয়াজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। 

আহত শিক্ষক সিদ্দিককে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি ওই বিদ্যালয়ের জৈষ্ঠ শিক্ষক। আর ফারদিন একই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র। সে উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মোক্তার হোসেনের ছেলে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হালিম জানান, বেশ কিছুদিন ধরে নবম শ্রেণির ছাত্র ফারদিনসহ তার অনুসারীরা বিভিন্ন ক্লাসের ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ বিষয়ে শিক্ষক সিদ্দিক প্রতিবাদ করেন এবং তাদের ধমক দিয়ে 'শাসন' করেন, যাতে তারা এমন কাজ না করে।

তিনি বলেন, কিন্তু এতে ফারদিন শিক্ষক সিদ্দিকের ওপর ক্ষিপ্ত হয়। এরই জের ধরে এদিন সকাল ১০টার দিকে শিক্ষক বিদ্যালয়ে এলে ফারদিনসহ তার অনুসারীরা তাকে বিদ্যালয় চত্বরে লাঠিসোঁটা দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেন। 

এ ব্যাপারে আমিনপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক সিদ্দিক।

তিনি বলেন, একজন ছাত্র বেয়াদবি করবে, স্কুলের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করবে। আর তাকে ধমক দেয়া, শাসন করা কি আমার অপরাধ। এজন্য ছাত্র হয়ে শিক্ষকের গায়ে হাত তুলবে? এটা মেনে নেয়া যায় না। অভিভাবকরা কী সন্তানদের শাসন করা, আদব-কায়দা শেখানো ভুলে গেছেন।

আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে সেসব ছাত্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত শিক্ষার্থী ফারদিনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়